ওয়াশিং মেশিন বা হাতে কাচাকাচি আর নয়! কোনোরকম ঝামেলা ছাড়াই খুব সহজ এই উপায়ে পরিষ্কার করুন মশারী!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- আমাদের দৈনন্দিন জীবনের ব্যবহার্য জিনিসগুলির মধ্যে অন্যতম হলো মশারি। বর্তমান সময়ে যেভাবে মশা মাছির উপদ্রব বেড়েই চলেছে তাতে কোনভাবেই এই মশারি টাঙিয়ে না থাকলে রাত্রেবেলাতে কিন্তু ঘুমানো সম্ভব নয়। মশারি টাঙিয়ে না শুলে আপনাদের ঘুমের যেমন ব্যাঘাত ঘটবে ঠিক তেমন ভাবেই কিন্তু বিভিন্ন পোকামাকড়েরা উৎপাত করতে পারে। তবে শুধুমাত্র মশারি টাঙিয়ে শুলেই কিন্তু হলো না নিয়মিত সময় অন্তর এটাকে পরিষ্কার করাও আপনার দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। যদি আপনারা সঠিক পদ্ধতিতে মশারি না পরিষ্কার করে থাকেন নির্দিষ্ট সময় অন্তর সেক্ষেত্রে কিন্তু নানান ধরনের সমস্যা হতে পারে।

প্রথমত মশারি অত্যন্ত দৃষ্টিকটু হয়ে যায়। পাশাপাশি এর মধ্যে ঘুমোতেও কিন্তু আমাদের ভালো লাগে না। তবে বেশিরভাগ মানুষই কিন্তু মনে করেন যে মশারি পরিষ্কার করা একটা অত্যন্ত ঝামেলার ব্যাপার। সেই সব মানুষদের জন্যই আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন, যেখানে আমরা আলোচনা করতে চলেছি কিভাবে ওয়াশিং মেশিন বা হাতে কাঁচাকাচির ঝামেলা ছাড়াই সহজ পদ্ধতিতে আপনারা মশারি পরিষ্কার করে নিতে পারেন। অনেকের বাড়িতেই কিন্তু ওয়াশিং মেশিন নেই তাই স্বাভাবিকভাবে হাতে মশারি পরিষ্কার করতে গেলে অনেক সমস্যা হতে পারে। তারা অবশ্যই এই পদ্ধতিটি ট্রাই করে দেখবেন এবং ফলাফল আমাদেরকে জানাতে ভুলবেন না।

কোনরকম ঝামেলা ছাড়াই মশারি পরিস্কার করার উপায়:

এই পদ্ধতিতে মশারি পরিস্কার করার জন্য প্রথমেই আপনাদের একটি বড় পাত্রের মধ্যে বা বড় হাড়ির মধ্যে প্রয়োজন অনুসারে গরম জল করে নিতে হবে। এবার এই গরম জলের মধ্যে আপনাদের ধীরে ধীরে বিশেষ কিছু উপকরণ মিশিয়ে দিতে হবে যা সাধারণত কিন্তু আমাদের ঘরের মধ্যেই পাওয়া যায়।

এই জলের মধ্যে আমাদের প্রথমেই দিয়ে দিতে হবে ডিটারজেন্ট পাউডার। এই কাজে কিন্তু আপনারা যে কোন ব্র্যান্ডের ডিটারজেন্ট পাউডার ব্যবহার করতে পারেন কোন সমস্যা হবে না। এরপর দ্বিতীয় যে জিনিসটি আপনাদের দিতে হবে সেটা হল বেকিং সোডা বা খাওয়ার সোডা। দুই চামচ পরিমাণ বেকিং সোডা দেবেন।

যদি মশারি খুব একটা নোংরা না থাকে সেক্ষেত্রে কিন্তু এক চামচ সোডা তেও কাজ হয়ে যাবে। আপনাদের এই গরম জলের মধ্যে মিশিয়ে দিতে হবে এক চামচ পরিমাণ লবণ আর হাফ কাপ পরিমাণ ভিনেগার।

লবণ কিন্তু যে কোন জামাকাপড়ের রং খুব সুন্দর আর উজ্জ্বল রাখতে সাহায্য করে থাকে। এবার সমস্ত উপকরণ গুলিকে আপনাদের হাতের সাহায্যে ভালো করে গরম জলের সঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে। এভাবে মেশানোর ফলে কিন্তু আপনারা লক্ষ্য করবেন একটা ফেনার মতন বেরোচ্ছে। এবার এই জলের মধ্যে আপনাদের নোংরা হয়ে যাওয়া মশারি ভালোভাবে চুবিয়ে রেখে দিতে হবে অন্তত আধঘন্টা থেকে এক ঘন্টা সময় পর্যন্ত।

সবশেষে ভালো করে এটাকে ওই গরম জলের মিশ্রণ থেকে বের করলেই আপনারা দেখবেন কতটা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে। এরপর খুব সাধারন ভাবে যেকোনো জামা কাপড় আপনারা কাচেন ঠিক তেমনভাবেই এই মশারিকে কিন্তু আপনাদের কেচে স্বচ্ছ জলে ধুয়ে নিতে হবে। ফলাফল আপনারা হাতেনাতেই দেখতে পারবেন। মশারি কতটা পরিষ্কার হয়ে সেটা আপনারা জলে ধুয়ে নেওয়ার পরেই বুঝতে পারবেন।

এরপর রোদে বা ফ্যানের হাওয়ায় ভালো করে শুকিয়ে নেওয়ার পর সহজেই এটাকে ব্যবহার করুন। এই পদ্ধতিতে কিন্তু আপনাকে ঘন্টার পর ঘন্টা বসে থাকতে হবে না বা কোনরকম কাচাকাচি করারও বিশেষ দরকার নেই। দৈনন্দিন ব্যস্ততার মাঝে যারা মশারি ধোয়ার সময় পান না তারা অবশ্যই একদিন এই পদ্ধতি ট্রাই করে দেখতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button