”আমাদের মেয়েদের ছুঁলেই সরাসরি মৃ’ত্যুদণ্ড, অন্য কোনো ত’দ’ন্ত নয়”, হুঁশি’য়ারি অসমের মন্ত্রীর!

”আমাদের মেয়েদের ছুঁলেই সরাসরি মৃ’ত্যুদণ্ড, অন্য কোনো ত’দ’ন্ত নয়”,  হুঁশি’য়ারি অসমের মন্ত্রীর!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- সামনে বিধানসভা ভোট কেন্দ্র করে আমরা প্রতিনিয়ত চোখ রাখছি আমাদের রাজ্যের উপর । সাথে সাথে আমাদের এটা মাথায় রাখতে হবে যে অন্য রাজ্যে ভোটের পরিস্থিতি ঠিক কেমন ? সেখানকার মানুষ কাকে নিয়ে আসবে তাদের রাজ্যে ক্ষমতায়? যারা ক্ষমতায় আছে-তারাই থাকবে আগামী দিনে ? নাকি আসনে আসবে অন্য কেউ । তবে সে সম্পর্কে বলতে গেলে বলতে হবে আসামের কথা । বিধানসভা নির্বাচনের আগে জোর কদমে মাঠে নেমেছে বিজেপি । এর আগে আসামে বিজেপি দল ৫ টি আসন হারিয়েছেন । এবার আর একই ভুল করতে চাইনা বিজেপি ।

দেশে যখন নারী শিক্ষা নিয়ে প্রশ্ন উঠে আসে বারবার তখনই সে নারী সুরক্ষা নিয়ে ফের আরও একবার সরব হলেন আসামের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্বশর্মা । তিনি কড়া ভাষায় হুঁশি-য়ারি দিয়ে বলেন যে এরা যে এ রাজ্যের কোন ছেলে মেয়ে নিজের ধর্ম বা পরিচয় গো-প-ন রেখে বিয়ে করলে বা এরাজ্যের মা বোনেদের সাথে কোনো খারাপ ব্যবহার করলে অপরাধীর কঠোরতম শাস্তি হবে । তবে যেখানে উত্তরপ্রদেশে বিজেপি শাসিত অঞ্চলের একের পর এক হয়ে চলেছে নারী ওদের প্রতি অবমাননার ঘটনা সেখানে সেই বিজেপির মুখ থেকে নারী সুরক্ষা ঠিক কতটা প্রসঙ্গত হবে তা নিয়ে আছে সংশয়।

এদিন এআইইউডিএফ  প্রধান বদ্রুদ্দিন আজমলকে সরাসরি আক্র-মণ করেন হিমন্ত বিশ্বশর্মা। তিনি এদিন সাফ জানিয়ে দেন, আজমলস আর্মির চক্রা-ন্তের জন্য নির্বাচনে বিজেপি পাঁচটি কেন্দ্রে আসন হারিয়েছে। কিন্তু একই ভুল বিজেপি আর করবে না। তিনি এদিন বলেন, ”আমরা প্রতিজ্ঞা করেছি, আজমলস আর্মির কেউ আমাদের মেয়েদের স্পর্শ করলেই তাঁদের একমাত্র শা-স্তি হবে মৃ-ত্যুদণ্ড। বহু মুসলিম ছেলে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের পরিচয় গো-প-ন করে অসমের মেয়েদের প্রেমের ফাঁ-দে ফেলছে। লাভ জিহাদ এখন অসমের মেয়েদের কাছে সব থেকে বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই সমস্যা আমাদের সমাধান করতে হবে। না হলে আগামী দিনে আরও বড় বি-প-দ আমাদের মেয়েদের জন্য অপেক্ষা করছে।”

শুধুমাত্র এখানে তিনি থেমে থাকেননি। তিনি আরো একধাপ এগিয়ে গিয়ে বলেছেন ”আজমলস আর্মির চক্রান্তের বি-রু-দ্ধে সবাইকে রু-খে দাঁড়াতে হবে। না হলে এই সংস্কৃতি ও সভ্যতাকে বাঁচানো যাবে না। এমনকী অসমের মানুষের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত থাকবে না। নির্বাচনে বিজেপি পুনর্নির্বাচিত হয়ে না এলে আগামী ১৫ বছরের মধ্যে অসম আর বসবাসের যোগ্য থাকবে না। তাই এখনই জেগে ওঠার সময়।” । প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ২০২১ সালের মার্চ-এপ্রিল মাসে অসমে বিধানসভা নির্বাচন হওয়ার কথা। মোট ১২৬টি আসনে হবে অসমের নির্বাচন। তবে ভোটের আগে মানুষ কতটা বিশ্বাস করে বিজেপিকে আবার ক্ষম-তায় আনবে তা শুধুমাত্র সময় বলবে ।

,

Leave a Reply

Your email address will not be published.