আজকের গল্প :- আমার ডিভোর্স! সত্য ঘটনা অবলম্বনে…

আমার ডিভোর্স টা হওয়ার পেছনের ইতিহাসটা ছিল খুবই নির্মম।কারণ আমি নতুন পরিবেশে প্রথমত মানিয়ে নিতে পারছিলাম না।আর অন্যদিকে আমার উনি ছিলো নেশায় আসক্ত।আমাকে দিনরাত অমানুষিক নির্যাতন করতো।।যেমন শাশুড়ি তেমন ননদ,।আর উনিতো সুযোগ পেলেই চড়-থাপ্পড়।।আর না হলে গলা টিপে ধরতো,আর যেসব অকথ্য ভাষায় বলতো,,omg…তাই আমি আর নিতে পারছিলাম না,।আশে পাশের সবাই বলতো ও নাকি গাঁজা সেবন করে আমি শুনে খুব কাদতাম।রাত জেগে ব্রত রাখতাম।ওনাকে খুব বোঝাতাম। কিন্তু ওনি আমাকে বলতো সে যা খুশি করবে।আর আমাকে তার নাকি ভালো লাগে না।

তার এখন আবার নতুন বউ দরকার। আমি অবশেষে আর পারছিলাম না ।তাই মাকে বললাম মা আমি না আর এসব নিতে পারছিনা, আমি মারা যাবো। তাই মা বাড়ি নিয়ে আসলো। বাসায় আসার পর দেখলাম আমার ভাগ্নি কে ও মেসেজ দিচ্ছে, ও আমার ভাগ্নির সাথে প্রেম করবে, তো আমি ব্যাপারটা দেখছিলাম দেখার পরে আমার কাছে ভালো লাগলো না। আমি প্লান করলাম। আমি আমার ভাগ্নি  কে বললাম যে তুই কথা বল দেখ কি বলে। দেখলাম যে ও আমার ভাগ্নি কে বিয়ে করবে।

পরে আমার বোন কে ফোন করে বলছে যে তুমি জানো তুমি কার সাথে কথা বলছ  দেখালাম পরে ও সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমাকে ডিভোর্স দিবে।। এরপর ও আমার আর কোনো খোঁজ খবর নিতাম না।পরে জানতে পারলাম যে ও নাকি একটা বিয়ে করছে মেয়েটার নাম ছিল মিতু ,মেয়েটার সাথে টিকটক ভিডিও ছাড়ছে যেগুলা সবাই দেখছি। দেখার পরে আমি নিজেকে ঠিক করতে পারছিলাম না  পুরো মরার মত অবস্থা ছিল। খাবার ঠিকমতো  খেতাম না আমার মা আমাকে জোর করে খাওয়াত। এরপর আমার মা ডিসিশন নিলো যে তার আমার সাথে  সম্পর্ক  থাকবে না ,তারপর সবাই মিলে পরামর্শ করে সেপ্টেম্বর ২৪ তারিখ ডিভোর্স টা হয়ে যায়। খুব কাঁদছিলাম। আমার দিকে কিন্তু সে একবার ফিরেও তাকায় নি!

Back to top button