বুড়ো বয়সেও নেই বয়সের ছাপ! সানগ্লাস পরে ফিট পোশাকে রাস্তায় বেরোলেন মাধুরী দীক্ষিত, ভাইরাল ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন: ৯০ এর দশকের শেষের দিকে যে সমস্ত বলিউড অভিনেত্রীরা দর্শকদের হৃদয়ে অত্যন্ত সহজেই জায়গা করে নিয়েছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন মাধুরী দীক্ষিত। তাঁর মুক্তঝরা হাসি আজও ঘুম কাড়ে কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারীর। ভক্ত হৃদয়ে তাঁর চিরকালের বাস। অথচ ধীরে ধীরে বয়সের প্রকোপ দেখা যাচ্ছে তার ওপরেও। সম্প্রতি দিন কয়েক আগেই সোশ্যাল মিডিয়ার ভাইরাল হয়ে উঠেছে মাধুরী দীক্ষিতের একটি ভিডিও।

আর তা দেখার পরে দর্শকদের একাংশ অনেকটা এমনই মন্তব্য করেছেন। নেটিজেনদের একাংশের মতে ধীরে ধীরে বয়সের ছাপ গ্রাস করছে একসময়ের এই সুন্দরী অভিনেত্রীকে। আপনাদের মনে হয়তো প্রশ্ন আসছে এমন কি রয়েছে সেই ভাইরাল ভিডিওতে! আসুন জেনে নেওয়া যাক। সম্প্রতি একটি জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেল থেকে মাধুরী দীক্ষিতের একটি ভিডিও শেয়ার করা হয়েছে।

সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে নিজের স্বামীর সাথে জনপ্রিয় একটি শপিং মলে কেনাকাটা করতে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী। সেখান থেকেই বেরিয়ে এসে নিজের গাড়িতে ওঠার সময় পাপারাৎজ্জিদের ক্যামেরাতে ধরা পড়েন নায়িকা। কিন্তু এই কয়েক মুহূর্তের ভিডিওতেই অভিনেত্রী কে দেখে বেশিরভাগ মানুষ বলছেন তিনি সম্পূর্ণরূপে বয়স্ক হয়ে গিয়েছেন। সত্যি কথা বলতে স্বাভাবিক ভাবেই লক্ষ্য করা যাচ্ছে অভিনেত্রীর চেহারায় অনেকটাই বয়সের ছাপ স্পষ্ট।

জানিয়ে রাখি দীর্ঘ সময় ধরেই বলিউড ইন্ডাস্ট্রি থেকে দূরে রয়েছেন মাধুরী। ক্যামেরার সামনে খুব একটা দেখা যায় না তাকে। তবে বিভিন্ন নামে ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপনে প্রায় সময় দেখা যায় এই অভিনেত্রীকে। চলচ্চিত্র জগৎ থেকে দূরে থাকার কারণে স্বাভাবিকভাবেই হয়তো কিছুটা হলেও তার বয়সের ছাপ দেখা দিয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য মাত্র ১৭ বছর বয়সে বলিউডে পা রাখেন মরাঠি পরিবারের এই সুন্দরী কন্যে।

বলিউডের বিভিন্ন জনপ্রিয় চলচ্চিত্রের গান যেমন “এক দো তিন” (তেজাব), “হামকো আজ কাল হ্যায়” (সায়লাব), “বড় দুখ দিনহা” (রাম লক্ষ্মণ), “ধক ধক” (বেটা), “চানে কে খেত মে” (আনজাম), “দিদি তেরা দেবর দিওয়ানা” (হাম আপকে হে কৌন), “চোলি কি পিছে” (খলনায়ক), “আখিয়া মিলাও” (রাজা), “মেরা পিয়া ঘর আয়া” (ইয়ারানা) “কে সেরা সেরা” (পুকার), “মার ডালা” (দেবদাস) প্রভৃতিতে নিজের অসামান্য প্রতিভার অবদান রেখেছিলেন মাধুরী দীক্ষিত।

যদিও এরপর ধীরে ধীরে আচমকাই ইন্ডাস্ট্রি থেকে উধাও হয়ে যান নায়িকা। আমেরিকার ব্যস্ত ডাক্তার শ্রীরাম নেনেকে বিয়ে করে বিদেশবাসিনী হয়ে যান তিনি। বর্তমানে অভিনেত্রী স্বামী-পুত্র নিয়ে ঘোরতর সংসারী। উল্লেখ্য বলিউড চলচ্চিত্র তার অসামান্য অবদানের জন্য ২০০৮ সালে পদ্মশ্রী সম্মান পেয়েছিলেন অভিনেত্রী।

Back to top button