অপেক্ষার অবসান! কলকাতায় ৫জি নিয়ে নয়া রেকর্ড জিও’র, নেটের স্পিড শুনলে লাগবে ঝটকা!

নিজস্ব প্রতিবেদন: গ্রাহকদের সুখবর দিয়ে চলতি মাসের গোড়ার দিকেই দেশের সবথেকে বড় চারটি শহর দিল্লি, মুম্বাই, কলকাতা এবং বারাণসীতে 5G পরিষেবা শুরু করার কথা জানিয়ে ছিল রিলায়েন্স জিও। জোরকদমে চলছিল তার প্রস্তুতি। পাঠকদের উদ্দেশ্যে জানিয়ে রাখি, মুকেশ আম্বানির মালিকানাধীন রিলায়েন্স জিওর এই স্ট্যান্ডঅ্যালোন (SA) 5G প্রযুক্তির নাম ‘ট্রু ৫জি’ । ইতিমধ্যেই এই পরিষেবার অধীনে বিশেষ একটি অফার নিয়ে চলে এসেছে দেশের শীর্ষস্থানীয় এই টেলিকম সংস্থা।

সেই অফার অনুযায়ী কোনো 5G প্ল্যান লঞ্চ না হওয়া পর্যন্ত ব্যবহারকারীরা ১ জিবিপিএসের চাইতেও বেশি স্পিডে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আনলিমিটেড 5G ডেটা ব্যবহার করতে পারবেন বলেই জানানো হচ্ছে। তবে খবরটি শোনার পর অনেক মানুষের মনেই কিন্তু নানান ধরনের প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। নতুন পরিষেবাতে কি তবে এতটাই স্পিডে ইন্টারনেট পাওয়া যাচ্ছে? কতদিন পর্যন্ত চালু রাখা হবে এই অফার থেকে শুরু করে অনেক প্রশ্নই কিন্তু উঠে এসেছে!

দিল্লি, কলকাতা, মুম্বাই ও বারাণসীতে Jio-র 5G স্পিড কেমন থাকতে চলেছে?

সম্প্রতি আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত স্পিড টেস্টার ওকলা (Ookla)-র তরফ থেকে প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী জানা যাচ্ছে যে,কলকাতায় জিও ৪৮২.০২ এমবিপিএস ডাউনলোড স্পিড সরবরাহ করতে পারছে যেটাকে মাঝারি মানের পরিষেবা সহজেই বলা যায়। অন্যদিকে মুম্বাই এবং বারাণসীতে যথাক্রমে ৫১৫.৩৮ এমবিপিএস এবং ৪৮৫.২২ এমবিপিএস স্পিড লক্ষ্য করা যাচ্ছে এই নতুন পরিষেবায়।

এবার প্রথম দিকে যাই স্পিড থাকুক না কেন সময়ের সঙ্গে সঙ্গে যখন ধীরে ধীরে পরিষেবার ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়তে শুরু করবে তখন ঠিক কতটা ভালো স্পিড পাবেন মানুষ সেটা কিন্তু এখনই নির্ধারণ করে বলা যাচ্ছে না! জিওর লঞ্চের শুরুতেই কিন্তু মানুষ দারুন স্পিড পেয়েছিলেন ইন্টারনেটের। তবে ধীরে ধীরে পরিষেবা অনেকটাই স্লো হয়ে যায়। এবার এই ব্যাপারটি 5G স্পিডের ওপর কতটা প্রভাব ফেলবে তা এখনই নির্ধারণ করে বলা সম্ভব হচ্ছে না।

5G পরিসেবা পেতে গেলে কি গ্রাহকদের জিওর নতুন সিম নিতে হবে?

জিও ইউজারদের মধ্যে বর্তমানে এটাই এখন সব থেকে বড় একটি প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে।  রিলায়েন্স জিও স্ট্যান্ডঅ্যালোন (স্বতন্ত্র) ৫জি প্রযুক্তি স্থাপন করছে; অর্থাৎ সংস্থার নেটওয়ার্কটি একটি ৫জি কোরে চলবে, এবং এটি বিদ্যমান এলটিই (LTE) কোরের উপর নির্ভর করবে না। কলকাতা, দিল্লি, মুম্বাই ও বারানসীর যে সমস্ত জিও ব্যবহারকারীদের কাছে ৫জি হ্যান্ডসেট রয়েছে, তারা জিও ৫জি ওয়েলকাম অফারে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই আপগ্রেড হয়ে যাবেন, এবং সম্পূর্ণ নিখরচায় নিজেদের ৪জি (4G) সিম এবং বিদ্যমান রিচার্জ প্ল্যান এর সাহায্যেই নতুন পরিষেবা সহজে ব্যবহার করতে পারবেন। তবে এই মুহূর্তে এন২৮ (n28), এন৭৮ (n78) এবং এন২৫৮ (n258) ব্যান্ডে 5G পরিষেবা পাচ্ছেন জিও ব্যবহারকারীরা।

অদূর ভবিষ্যতে ১ জিবিপিএসের থেকেও বেশি স্পিড দিতে কি সক্ষম হবে জিও?

মুকেশ আম্বানির মালিকানাধীন এই শীর্ষস্থানীয় টেলিকম সংস্থার মাধ্যমেই 2016 সালে ভারতে ছড়িয়ে পড়েছিল 4G নেটওয়ার্ক । ইন্টারনেটে স্পিড থেকে শুরু করে অনেক অফার কিন্তু এই পরিষেবার মাধ্যমে উপভোগ করেছিলেন গ্রাহকেরা। সুতরাং এবারে আবারো নতুন পরিষেবা অর্থাৎ 5G পরিষেবা উপলব্ধ হওয়ার আগেই Jio যে অবশ্যই সমস্ত দেশবাসীকে ঝড়ের গতির স্পিড অফার করবে, এটা অনেকেই কিন্তু ভেবে রেখেছেন।

চলতি মাসের শুরুতে আয়োজিত হওয়া ইন্ডিয়া মোবাইল কংগ্রেস ২০২২ ইভেন্টে এর কিছু ঝলক আমরা বুঝতেও পেরেছিলাম। এই ইভেন্টে ৩.৫ গিগাহার্টজ ব্যান্ডে ৫জি নেটওয়ার্কের স্পিড টেস্ট করে সংস্থার এক কর্মী জানিয়েছিলেন যে, Jio-র 5G নেটওয়ার্ক প্রতিবারই ১.৪ জিবিপিএস থেকে ১.৭ জিবিপিএসের মধ্যে স্পিড পাওয়া গিয়েছে।

Back to top button