একশো ছুঁইছুঁই হয়েও সাইকেল নিয়ে গ্রামে গ্রামে ঘুরে দরিদ্র মানুষদের চিকিৎসা করেন বৃদ্ধা, কুর্নিশ নেটিজেনদের!


নিজস্ব প্রতিবেদন :-এদেশ সত্যি বৈচিত্রের দেশ। তার কারণ কোথাও হয়তো দেখা যায় লাখ লাখ টাকা নিয়ে ঠিকমতন চিকিৎসা ব্যবস্থা বা চিকিৎসা করেনা ডাক্তারবাবুরা ।গাফিলতির অভিযোগ উঠে আসে প্রতিনিয়ত। সেখানেই কোথাও দেখা যায় যে বয়স ৯০ এর উপর হয়ে যাওয়ার পরও বহাল তবিয়তে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে চালিয়ে যাচ্ছে চিকিৎসাব্যবস্থা । পার্থক্য শুধুমাত্র মানসিকতার । পার্থক্য মেরুদন্ড বিকিয়ে না যাওয়ার ।

বয়স প্রায় ৯০ ছুঁইছুঁই ,তবুও এখনো গ্রামে গ্রামে ঘুরে বেড়ান তিনি সাইকেল নিয়ে । লক্ষ্য একটাই অসুস্থ কোন মানুষকে দেখলে বিনামূল্যে চিকিৎসা করবেন নেবেন না একটা টাকাও এবং শুধুমাত্র এই কাজটি তিনি করে আসছেন ৪৭ বছর ধরে আর বাকি জীবনটা অর্থাৎ যখন তিনি বাঁচবেন ততদিন তিনি এই কাজ করে যেতে চান এমনটাই জানিয়েছেন বাংলা নানি ।বাংলা নানির বাড়ি হল টাঙ্গাইলে।

তার কাছে মানুষ কে সেবা লোর হচ্ছে এক আলাদা ধর্ম এবং সেই ধর্ম কে সামনে রেখে তিনি বাকি জীবনটা কাটিয়ে দিতে চাই এমনটাই জানিয়েছেন তিনি । স্বাস্থ্য সেবা পরিকল্পনা নিয়ে পড়াশোনা করার পর তিনি হয়ে উঠলেন গরিবের ডাক্তার, যিনি তার সাধ্যমত রোগ নিরাময় করতেন। জানা যায় যে এই বৃদ্ধা সাইকেল নিয়ে এ গ্রাম থেকে ও গ্রামে যান রোগীর সেবা করবেন বলে। যখনই খবর পান গ্রামের কেউ অসুস্থ তখনই তিনি সাইকেল নিয়ে বেড়িয়ে পড়েন রোগী দেখার উদ্দেশ্যে।

অনেক সময় রোগী দেখে বাড়ি ফিরতে তার অনেক রাত হয়ে যায়।তার বাড়ি নাতি নাতি না তাকে এই কাজ থেকে বিরত থাকার জন্য অনেক বার অনুরোধ করেছে কিন্তু তিনি তার সিদ্ধান্তে অনড়। এর পাশাপাশি তিনি যেসব রোগগুলি চিকিৎসা করতে পারেন না সেই সমস্ত রোগী গুলিকে ভালো হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন এবং যোগাযোগ করে দেন । সম্প্রতি এই ধরনের ঘটনা তাকে মানুষের কাছে এক মানুষরূপী ভগবান করে তুলেছে ।

,

Leave a Reply

Your email address will not be published.