ঢোল বাজিয়ে ট্রেনের মধ্যে অসাধারণ গান গেয়ে সকলকে মুগ্ধ করল অসহায় ছোট্ট বালকটি ,ভাইরাল হল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন: গায়ে অপরিস্কার জামা-প্যান্ট। উসকো-খুসকো চুল, যা দেখে দারিদ্র স্পষ্ট। বয়স  ৭-৮ হবে, বা তাও নয়। ট্রেনের কামরায় সে খুদের দমদার গানে তোলপাড় হয়ে  যাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া (Viral Video)। তেরি মেরি মেরি তেরি গানে ঢোল বাজিয়ে, গেয়ে ফেলেছে সে। তাও আবার একেবারে নিজের স্টাইলে। মিনিট খানেকের ভিডিওটি দেখে খুদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ নেটিজেনরা। অনেকেরই মত তাঁর এই গান,

আরও অনেক মানুষের কাছে পৌঁছে যাওয়া উচিত। রানু মণ্ডল (Ranu Mondal) হোক বা ‘বচপন কা প্যায়ার’-র  ছোট্ট গায়ক সহদেব দিরদো সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে এক রাতে তারা পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে বিভিন্ন বয়সের মানুষের ঘরের দুয়ারে পৌঁছে গিয়েছে। তাদের প্রতিভা এখন আর কারও অজানা নয়।

ঠিক যেমন সঠিক সময়, সঠিক যোগাযোগ বা সঠিক মুহূর্ত ছাড়া প্রতিভা সামনে আসে না, ঠিক তেমনই কথা আছে কারও কোনও প্রতিভা থাকলে, তা কোনও না কোনও দিন ঠিক প্রকাশ পায়। যেমনটা হয়েছিল রানু মণ্ডল বা সহদেবের ক্ষেত্রে। সম্প্রতি ছত্তিশগড়ের গরিব পরিবারের সন্তান কিশোর সহদেব পাড়ি দিয়েছিল মুম্বই। জীবনে প্রথমবার প্লেনে চড়েছে সে।

গাড়ি উপহার পেয়েছে। বাদশার সঙ্গে ‘বচপন কা প্যার’ রেকর্ড করেছে। সেই গান লক্ষ লক্ষ মানুষ শুনে ফেলেছে। সম্প্রতি সেই সহদেব ‘মানি হাইস্ট’ ওয়েব সিরিজের ‘বেলা চাও’ গেয়ে ফের সংবাদের শিরোনামে এসেছিল। রানাঘাট প্ল্যাটফর্মে ভিক্ষাবৃত্তির কাজ করতে করতেই অতীন্দ্র নামে এক যুবকের নজরে পড়েন রানাঘাটের রানু মণ্ডল (Ranu Mondal)।

তিনি রানুর একটি গান মোবাইলে রেকর্ড করে শেয়ার করেন সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social Media)। রাতারাতি তা ভাইরাল (Viral Video) হয়ে যায়। সেই রানু হিমেশ রেশমিয়ার সঙ্গে কাজ করে এসেছেন মুম্বই গিয়ে। তাঁকে নিয়ে তৈরি হচ্ছে সিনেমা। তবে রানু মণ্ডলের ব্যবহারের জন্য অনেকেই তাঁর প্রতি অসন্তুষ্ট হয়েছেন বারে বারে। ফলে তাঁকে অনেকটাই অন্তরালে চলে যেতে হয়েছে না চাইলেও।

এ দিন যে ভিডিওটি এক সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী শেয়ার করেছেন, সেটি ট্রেনের কামরায় তোলা। ছোট্ট ছেলেটি বলিউডের জনপ্রিয় র‍্যাপার বাদশার তেরি মেরি মেরি তেরি গান ঢোল বাজিয়ে গাইছে। সেই গান শুনে মাতয়ারা ট্রেন যাত্রীরা। হাততালি দিয়ে তাকে উৎসাহিত করছেন সকলে মিলে।

ভিডিওটি ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল (Viral Video) হয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই প্রচুর মানুষ ভালবাসা জানিয়েছেন শিশুটিকে। অনেকেই বলেছেন ‘এ যেন আর এক সহদেব’। যিনি ভিডিওটি শেয়ার করেছেন, তিনি লিখেছেন, এই বাচ্চাটির গানও সকলের কাছে পৌঁছে দেওয়া উচিত। কারণ ওর ও নিজের প্রতিভা দেখানোর সুযোগ পাওয়া উচিত।

Leave a Comment