অনেকদিন পর্যন্ত আদা, রসুন এবং পেঁয়াজের গুঁড়ো করুন সংরক্ষণ! শুধুমাত্র ব্যবহার করুন এই সহজ ঘরোয়া টিপস

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিভিন্ন রান্নার কাজেই কিন্তু আমাদের আদা, রসুন এবং পেঁয়াজ গুড়ো ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এই উপাদানগুলি ব্যবহারে কিন্তু আমাদের রান্নার স্বাদ কয়েক গুণ পর্যন্ত বৃদ্ধি পায়। আজকাল অনেকেই হয়তো বাজার থেকে বহু দাম দিয়ে এই সমস্ত পাউডার বাড়িতে কিনে নিয়ে আসছেন। তবে সমস্যা কি জানেন এই সমস্ত উপাদানের মধ্যে সম্পূর্ণ খাটি কিন্তু থাকে না।

অর্থাৎ অনেক ক্ষেত্রেই লাভ করার জন্য নানান রকমের জিনিস এর মধ্যে মেশানো হয়ে থাকে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি কিভাবে আদা, রসুন আর পেঁয়াজ গুড়ো আপনারা বাড়িতেই তৈরি করে তা মোটামুটি দীর্ঘ সময় পর্যন্ত সহজেই সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন। চলুন আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

আদার গুড়ো সংরক্ষণ পদ্ধতি: এর জন্য প্রথমেই আপনাদের পরিমাণ মতো আদা নিয়ে তার খোসা ছাড়িয়ে নিতে হবে ভালো করে।। এবার এই আদা গুলিকে গ্রেটারের সাহায্যে ভালো করে আপনারা গ্রেট করে নিন। গ্রেট করে নেওয়ার পরে একটা বড় পাত্রের মধ্যে যতটা সম্ভব ছড়িয়ে আদাগুলোকে আপনাদের রেখে দিতে হবে।

অন্ততপক্ষে তিন থেকে চার দিন বা তার বেশি সময় যদি আপনারা আদা গুলিকে করা রোদে রেখে দেন তাহলেই কিন্তু দেখবেন এই গ্রেট করে নেওয়া গুঁড়ো সম্পূর্ণ শুকিয়ে গিয়েছে। এবারে এই মুচমুচে আধা গুলিকে আপনাদের মিক্সার গ্রাইন্ডার এর সাহায্যে ভালো করে গুঁড়ো করে নিতে হবে। এবার আসা যাক সংরক্ষণের কথায়। আদার গুঁড়ো সংরক্ষণ করার জন্য আপনারা যে কোন কাঁচের জার বা এয়ারটাইট কন্টেনার ব্যবহার করতে পারেন।

রসুনের গুঁড়ো সংরক্ষণ পদ্ধতি: প্রথমেই পরিমাণ মতন রসুন নিয়ে সেগুলির খোসা ছাড়িয়ে আপনাদের কোয়া আলাদা করে নিতে হবে। তারপর ভালো করে ঠিক আদার মতন করেই এগুলিকেও গ্রেটারের সাহায্যে আপনারা গ্রেট করে নিন। তারপর বড় কোন পাত্রে ছড়িয়ে বেশ কিছুদিন পর্যন্ত ভালো করে কড়া রোদে আপনাদের এগুলি শুকিয়ে নিতে হবে।। রসুনগুলি মুচমুচে হয়ে গেলে ভালো করে গ্রাইন্ডার এর সাহায্যে আপনাদের এগুলি বেটে গুঁড়ো করে নিতে হবে। তারপর এয়ার টাইট কন্টেনারে বা কাচের যারে দীর্ঘ সময় পর্যন্ত কিন্তু আপনারা রসুনের পাউডার সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন আর রান্নার কাজে ব্যবহার করতে পারবেন।

পেঁয়াজের গুড়ো সংরক্ষণ পদ্ধতি: আশা করছি উপরের দুটি লেখা পড়ার পরে আপনাদের মধ্যে কিছুটা হলেও ধারণা তৈরি হয়েছে পেঁয়াজের গুঁড়ো তৈরি করার বিষয়ে। এই ক্ষেত্রে আপনাদের প্রথমেই ভালো দেখে কয়েকটি পেঁয়াজ নিয়ে তা সরু স্লাইস করে কেটে তিন থেকে চার দিন পর্যন্ত কড়া রোদে শুকিয়ে নিতে হবে। তারপর ঠিক একই রকম ভাবে এই মুচমুচে হয়ে যাওয়া পেঁয়াজগুলিকে আপনারা গ্রাইন্ডারের মধ্যে মিহি করে গুড়ো করে নিতে পারেন।

ব্যাস তৈরি হয়ে গেল পেঁয়াজের গুড়ো। এবার যে কোন কাঁচের জার বা এয়ার টাইট কন্টেইনারে আপনারা এই পেঁয়াজের গুলো সংরক্ষণ করে রেখে দিন। এগুলো কোনরকম ভাবেই ভেজাল নয়। সম্পূর্ণরূপে ঘরোয়া পদ্ধতিতে তৈরি। তাই আমাদের শরীরেরও কোনো ক্ষতি হবে না।

Back to top button