সর্ষে বাটা, পোস্ত বাটা ছাড়া বাটা মাছের দুর্দান্ত ইউনিক রেসিপি, গরম ভাতের সাথে জাস্ট জমে যাবে!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমাদের বাঙ্গালিদের কিন্তু বেশিরভাগ দিনেই পাতে একটি মাছের আইটেম না থাকলে একেবারেই চলে না বলা যায়। মাছের প্রতি একপ্রকার যেন আলাদাই আবেগ আর ভালোবাসা জড়িয়ে রয়েছে। কত কি রান্না করা যায় এই মাছ দিয়ে। মাছ ভাজা থেকে শুরু করে মাছের কালিয়া, মাছের টক অথবা মাছের মাথা দিয়ে বিশেষ কোনো রেসিপি, সবকিছুই কিন্তু অত্যন্ত সুস্বাদু। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনেও আমরা স্পেশাল একটি বিশেষ রেসিপি আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি।

পুজোর সময় এমন অনেক মানুষ রয়েছেন যারা খুব একটা ঘুরতে যান না। বাড়িতে বসেই জমিয়ে খাওয়া দাওয়া করে সময় কাটাতে ভালোবাসেন তারা। চলুন তাহলে আর সময় নষ্ট না করে গরম ভাতের সাথে জমে যাবে এমন একটি রেসিপি আপনাদের সাথে শেয়ার করি। রেসিপিটি হল আদা বাটা, সরষে বাটা এবং পোস্ত বাটা ছাড়া বাটা মাছের রেসিপি। আপনারা কমবেশি জানেন বাট বাটা মাছের বিভিন্ন রান্নায় কিন্তু এগুলি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তবে আজকে যে রেসিপিটি আমরা শেয়ার করব সেটা একেবারেই ইউনিক।

  • বাটা মাছের মজাদার এবং ইউনিক রেসিপি:

১) রেসিপিটি তৈরি করার জন্য আপনাদের চারটি বড় সাইজের বাটা মাছ নিয়ে নিতে হবে। স্বাদমতন লবণ আর কিছুটা পরিমাণ হলুদ গুঁড়ো ভালো করে মাছের উপরে ছড়িয়ে দিন। এবারে ভালো করে আপনাদের মাছ মাখিয়ে নিয়ে মিনিট পাঁচেক সময় রেখে দিতে হবে।

এবার কড়াইতে পরিমাণ মতন তেল ঢেলে গরম করে নিন। এই রান্নাটা আপনারা কিন্তু অবশ্যই সরষের তেলে তৈরি করবেন। তেলটা কে খুব ভালো করে গরম করে নেওয়ার পরে একটা একটা করে বাটা মাছ এর মধ্যে দিয়ে ভাজা করে নিন। বাটা মাছ ছাড়াও এই রান্নাটা আপনারা পাবদা মাছ ব্যবহার করেও করতে পারেন। মাছগুলো খুব বেশি কড়া করে ভাজার দরকার নেই। এপিঠ ওপিঠ ভালো করে লালচে ভাজা হয়ে গেলেই আপনারা তুলে নিতে পারেন।

২) আপনাদের একটি পাত্রের মধ্যে দুধ নিয়ে তাতে এক চা চামচ হলুদ গুঁড়ো দিয়ে দিতে হবে। এছাড়াও এর মধ্যে দিতে হবে হাফ চা চামচ কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো, হাফ চা চামচ জিরা গুঁড়ো এবং ১ চামচ পরিমাণ কাঁচা সর্ষের তেল। এবারে এই মিশ্রণটিকে আপনাদের ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে।

তারপর ওই মাছ ভাজা তেলের মধ্যে কালো জিরে আর কাঁচালঙ্কা দিয়ে ফোড়ন দিয়ে দিন। এবার কড়াইতে ওই দুধের মিশ্রণ ঢেলে দিতে হবে। মসলা সহযোগে এই দুধটাকে কিছুক্ষণ আপনাদের নাড়াচাড়া করে নিতে হবে। তারপর এর মধ্যে একটু কাঁচালঙ্কা বাটা যোগ করে দিন।

৩) কিছুক্ষন নাড়াচাড়া করার পর স্বাদমতো লবণ দিয়ে আপনাদের এটাকে আরো ভালো করেন মিশিয়ে নিতে হবে। ঝোলটা যখন ফুটে উঠবে তখন এর মধ্যে আপনারা আরো জল যোগ করে দিন। তারপর আপনাকে এর মধ্যে ধীরে ধীরে একটা একটা করে ভেজে রাখা বাটা মাছ দিয়ে দিতে হবে।

এই সময় রান্নার মধ্যে দুটি চেরা কাঁচা লঙ্কাও আপনাদের দিয়ে দিতে হবে। ৫ মিনিট সময় পর্যন্ত হাই ফ্লেমে ফুটিয়ে আপনাদের ঝোলটাকে ঘন করে নিতে হবে। মাছগুলোকে এই সময়ে আপনারা আরো একবার উল্টে দিন যাতে দুইদিকেই ভালো করে রান্না হয়ে যায়।

কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করার পরে নামানো ঠিক আগে কিছুটা পরিমাণ কাঁচা সর্ষের তেল এর মধ্যে আপনাদের দিয়ে দিতে হবে। অপূর্ব স্বাদের এই বাটা মাছের রেসিপি কিন্তু তাহলেই তৈরি হয়ে যাবে।

রান্নাটি করতে খুব বেশি সময় লাগে না। বাড়িতে ট্রাই করার পর নিজেদের অভিজ্ঞতা আমাদের সাথে কমেন্ট সেকশনে অবশ্যই শেয়ার করে নিতে পারেন। আপনাদের মতামত আমাদের কাছে অত্যন্ত মূল্যবান।

Back to top button