নিউজভিডিও

জীবনের শেষ শো’তে মেয়ের সাথেই গান গেয়েছিলেন সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়! নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হলো মা ও মেয়ের অসাধারণ গানের সেই ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন:বর্তমান সময়ে মানুষের জীবনে সোশ্যাল মিডিয়া একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। খুব সহজেই এখানে মানুষ নিজের অবসর সময় কাটিয়ে থাকেন। এক কথায় মানুষের জীবনের পরিভাষা পরিবর্তন করে দিয়েছে এই ইন্টারনেট জগৎ। বিশেষত করোনা আবহে মানুষের মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার আরো দ্রুতগতিতে ছড়িয়ে পড়েছিল।

সম্প্রতি দিন কয়েক আগেই প্রয়াত হয়েছেন সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়।একসময়ের তাবড় তাবড় সঙ্গীত শিল্পীদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন গীতশ্রী সন্ধ্যা। ১৯৩১ সালে কলকাতার ঢাকুরিয়া তে জন্মগ্রহণ করেন এই কিংবদন্তি শিল্পী। নিজের পিতা মাতার ছয় সন্তানের মধ্যে সবথেকে ছোট ছিলেন তিনি।

সম্প্রতি কিছু সময় আগেই তাকে বার্ধক্যজনিত অসুস্থতার কারণে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছিল।এমনকি বাথরুমে যেতে গিয়ে পড়ে গিয়েছিলেন গীতশ্রী। যার ফলস্বরুপ ভেঙ্গে গিয়েছিল তার ফিমার বোন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল 90 বছর।

তবে বিগত বেশ কিছুদিন ধরে আরো একটি বিষয় নিয়ে বাংলার রাজনীতিতে চর্চায় ছিলেন তিনি। প্রজাতন্ত্র দিবসের প্রাক্কালে সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায় কে পদ্মশ্রী সম্মান দেওয়ার কথা বলা হলেও তিনি অপমানিত বোধ করে তা প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। যে কারণে তাকে বেশ বিতর্কের মুখোমুখি হতে হয়েছিল।

এই ঘটনার দিন দুয়েকের মধ্যেই তার শারীরিক অবস্থার অবনতির কারণে তাকে এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।ডঃ সুকুমার মুখার্জির নেতৃত্বে সেখানে মেডিকেল বোর্ড তৈরি করা হয়। কিন্তু তারপরেও শেষ রক্ষা করা যায়নি। এমনকি জানা যায় তিনি করোনা আক্রান্ত। প্রথমদিকে চিকিৎসায় সাড়া দিলেওশেষের দিকে আর কোনো রকমের সাড়া দেয়নি তার শরীর। সম্প্রতি নেট মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়ের একটি ভিডিও।

ভাইরাল সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে কোন এক অনুষ্ঠানে সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায় এবং তার কন্যা ‘তুমি আমার মা আমি তোমার মেয়ে, বলো না মা কি পেয়েছ আমায় কোলে পেয়ে’ অসাধারণ গান টি গেয়ে সকলের মন জয় করে নিলেন।

এক কথায় মা এবং মেয়ের এই যুগলবন্দীতে মেতে উঠেছিল দর্শক। Milton music নামের একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে এই ভিডিওটি শেয়ার করা হয়েছে। কয়েকদিনের মধ্যেই ভিডিওটির দর্শক সংখ্যা প্রায় 11 লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে।প্রায় 59 হাজার মানুষ এই ভিডিওটিকে পছন্দ করেছেন।।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button