একসময় দাপিয়ে অভিনয় করে জিতেছিলেন দর্শকদের মন, অথচ আজ কোথায় হারিয়ে গেলেন অভিনেত্রী পদ্মা দেবী?

নিজস্ব প্রতিবেদন: নির্বাক থেকে শুরু করে সবাক যুগের চলচ্চিত্রের অন্যতম উজ্জ্বল নক্ষত্র ছিলেন অভিনেত্রী পদ্মা দেবী। বাংলা থেকে শুরু করে হিন্দি এবং কন্নড় চলচ্চিত্রেও দাপিয়ে অভিনয় করেছেন তিনি। শুধুমাত্র অভিনয় নয় গানের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি। তার অভিনয়ে দর্শকমহল অল্প সময়েই মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিল। প্রথমদিকে নায়িকার চরিত্রে অভিনয় করা পদ্মা দেবী ধীরে ধীরে পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করা শুরু করেন। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনের মাধ্যমে আমরা জেনে নেব তার জীবনের কিছু অজানা ইতিহাস।

অবশ্যই আমাদের এই প্রতিবেদনটি মনোযোগ সহকারে একেবারে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ে নিন। তাহলে অনেক অজানা কথাই আপনারা জানতে পারবেন। ১৯১৭ সালে পরাধীন ভারতের কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন পদ্মা দেবী। তার আসল নাম নীলিমা ভট্টাচার্য। তাদের আদিনিবাস ছিল মাদারীপুরে। মাত্র ১৪ বছর বয়সেই সিনেমা জগতে প্রবেশ করেন তিনি। ১৯৩১ সালে তার প্রথম ছবি শ্রী গনেশ মুক্তি পায়। পরিচালক ধীরুভাই দেশাইয়ের এই ছবিতে অভিনয় করার পরেই তিনি বেশ পরিচিত হয়ে যান সিনেমা জগতে।

১৯৩২ সালে পরপর পাঁচটি ছবিতে অভিনয় করেছিলেন নীলিমা। সিনেমা জগতে এসে নিজের নাম পরিবর্তন করে তিনি রাখেন পদ্মা দেবী। ১৯৩২ সালের পর ১৯৩৩ সালেও পদ্মা দেবী অভিনীত বেশ কয়েকটি ছবি মুক্তি পায়। তার মধ্যে ‘দ্য অ্যামাজন’ একটি অন্যতম ছবি। পদ্মা দেবীর উল্লেখযোগ্য কাজের মধ্যে কিষান কন্যা ছবিটি ভারতের প্রথম রঙিন চলচ্চিত্র রূপে গণ্য করা হয়। সাদাকালো ছবির যুগে এই ছবিটি কালার প্রিন্ট করাতে জার্মানিতে পাঠাতে হয়েছিল।

হিন্দি ছবি ছাড়াও বহু বাংলা ছবিতেও অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে তাকে। মোটামুটি চল্লিশের দশকের শুরুর দিকে তার বাংলা সিনেমায় আবির্ভাব হয়। ১৯৪২ সালে মহাকবি কালিদাস, ১৯৪০ সালে শেষ রক্ষা, ১৯৫৩ সালে বউ ঠাকুরানীর হাট এবং সাড়ে চুয়াত্তর, ১৯৫৮ সালের জলসাঘর পদ্মা দেবী অভিনীত জনপ্রিয় বাংলা ছবি।

পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করলেও পদ্মা দেবী তার প্রতিটি ছবিতে নিজের অভিনয় সত্তার প্রমাণ দিয়ে গিয়েছেন। প্রায় একশোর বেশি ছবিতে অভিনয় করা পদ্মা দেবী সতী মহানন্দা, বেহেন কা প্রেম, কিষান কন্যা প্রভৃতি ছবিতে গানও গেয়েছেন। তার মধ্যে যেমন অভিনয় দক্ষতা ছিল, ঠিক তেমনভাবেই ছিল তার গলার সুর। সবমিলিয়ে পদ্মা দেবী ওরফে নীলিমা ভট্টাচার্যকে এক অনন্য প্রতিভা বলা যায়।

১৯৮৩ সালের ১ লা ফেব্রুয়ারি তার জীবনাবসান ঘটে। তার মৃত্যুর মাধ্যমেই শেষ হয়ে যায় স্বর্ণযুগের একটি অধ্যায়।পদ্মা দেবীর মতন অভিনেত্রীরা আজ হয়তো স্মৃতির অতলে তলিয়ে গিয়েছেন। বর্তমান প্রজন্মের বেশিরভাগ মানুষ কিন্তু তাদেরকে চেনেই না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি আপনাদের যদি ভালো লেগে থাকে অবশ্যই তাহলে লাইক, কমেন্ট এবং শেয়ার করে নিতে ভুলবেন না।

Back to top button