‘পশ্চিমবঙ্গে ফের আরও একবার মা-মাটি-মানুষের সরকারই প্রতিষ্ঠিত হবে, মানুষের ওপর আমাদের আস্থা আছে’: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

‘পশ্চিমবঙ্গে ফের আরও একবার মা-মাটি-মানুষের সরকারই প্রতিষ্ঠিত হবে, মানুষের ওপর আমাদের আস্থা আছে’: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

নিজস্ব প্রতিবেদন :- সামনে একুশের বিধানসভা। ভোট হাড্ডাহাড্ডি হতে চলেছে এ ল-ড়া-ই । কে আসবে বাংলায় ক্ষমতা? সে নিয়ে আছে বেশ জ-ল্প-না। তবে বিনা যু-দ্ধে এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে নারাজ শাসকদল। তাই তাদের প্রস্তুতি ও বাকি সবার থেকে একটু আলাদা এর পাশাপাশি আর মাত্র হাতে গোনা কয়েকটা দিন। তারপর বাঙালি শ্রেষ্ঠ পুজোর দুর্গাপূজা। কার্যত দুর্গাপুজোর এই সময়কে কাজে লাগিয়েছে শাসক দল। অন্যদিকে বাংলায় ক্ষমতায় আসতে গেলে বাঙালির আবেগ কে আগে জয় করতে হবে এমনটা মনে করেছে গেরুয়া শিবির। তাই ষষ্ঠীর দিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ভাষণ দিতে চলেছেন ভার্চুয়াল মাধ্যমে ।

ভোটের আগে প্রশ্ন তো অনেকেই থেকে থাকে। কে হতে চলেছে ক্ষমতার উত্তরাধিকার ? কে বসতে চলেছে বাংলার আসনে ? ইত্যাদি ইত্যাদি তবে ফের আরও একবার তৃণমূল সরকার হতে চলেছে বাংলা শাসকদল এমনটা মনে করছে মুখ্যমন্ত্রী। তিনি তার কাজের প্রতি আ-ত্মপ্রত্যয়ী এবং আত্মবিশ্বাসী ও। তাই বৃহস্পতিবার নবান্ন থেকে ১১০ টি পুজো কমিটি উদ্বোধন করার পর তিনি বলেন আমরা ছিলাম আমরা আছি আমরা থাকবো বাংলায় আবার মা মাটি মানুষ আসবে” ।

এরপরই পজোর আয়োজন এবং অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, মানুষকে পাশে নিয়ে পুজো করতে হবে। সাধারণ মানুষ আমাদের নির্বাচিত করেছে। তবে মাস্ক পরে এবং শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে করোনা ছোঁয়াচ এড়িয়ে সত-র্কতার সঙ্গে পুজো করার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

তবে এই প্রসঙ্গ আনতে গিয়ে তিনি তুলে ধরেছেন উত্তরপ্রদেশের দুর্গাপুজো অনুমতি না দেওয়ার ঘটনাকে। তিনি বলেছেন, পুজো বন্ধ করা যায় না। অনেক রাজ্য তা করেছে। অনেক উৎসব ঘরে বসে করা যায়। কিন্তু দুর্গাপুজো জাতীয় উৎসব। পুজো মণ্ডপে বিশ্ব বাংলার আকার নেয়। এখানকার বেশিরভাগ পুজোর উদ্যোক্তা বিভিন্ন ক্লাব-সংগঠন। আবাসনেও পুজো হয়। করোনা আবহে এবার পুজো আয়োজনের ক্ষেত্রে ক্লাব-সংগঠনগুলির দায়িত্ব অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। সামনে বাঙালির এই আবেগকে কাজে লাগিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মনে করছেন ফের আরও একবার তৃণমূল কংগ্রেসই হতে চলেছে এই বাংলার শাসক দল ।

,