মাত্র ৩ টাকা খরচে ঘরে থাকা এই দুটি জিনিস দিয়ে বানিয়ে ফেলুন সুস্বাদু এই রেসিপি

নিজস্ব প্রতিবেদন: সকালের জলখাবারে হোক বা বিকেলের টিফিন সবকিছুতেই কিন্তু বাচ্চাদের নতুনত্ব খাবারের চাহিদা থাকে। কিন্তু সময়ের অভাবে হোক বা অন্যান্য যেকোনো কারণে আমরা সব সময় কিন্তু এই খাবারের চাহিদা পূরণ করতে পারি না। তাই আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা মাত্র তিন টাকা খরচ করে এমন একটি রেসিপি আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব যা স্বাদে হবে দুর্দান্ত।

তাহলে চলুন আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক। এই রেসিপিটি প্রস্তুত করতে আমাদের প্রথমেই প্রয়োজন হবে কয়েকটি পারলে–জি বিস্কুটের প্যাকেট। বাজারে আপনারা খুব সহজেই তিন টাকার প্যাকেটে এই বিস্কুট কিন্তু কিনতে পেয়ে যাবেন।এরকম বেশ কয়েকটি প্যাকেট কিনে আপনাদের প্রথমেই তা কড়াইতে সাদা তেল ব্যবহার করে ভেজে নিতে হবে। এই বিস্কুট ভাজার পর কিন্তু যতক্ষণ পর্যন্ত না তেল শুকিয়ে যাচ্ছে ততক্ষণ অবধি খুবই নরম অবস্থায় থাকে।

এরপর বিস্কুট কিন্তু বেশ মুচমুচে প্রকৃতির হয়ে যায়। এবারে আপনাদের মিক্সার গ্রাইন্ডার এর সাহায্যে এই বিস্কুট গুলিকে বেটে নিতে হবে। বেটে নেওয়ার পরে দেখবেন এই বিস্কুট গুলি অনেকটা খেজুর গুড়ের মতন দেখতে হয়ে যাবে। এবারে একটি ফ্রাইং প্যান গ্যাসে বসিয়ে তা গরম করে নিতে হবে। তারপর এতে কিছুটা পরিমাণ চিনি দিয়ে দিন।।যেহেতু পারলে–জি বিস্কুট মিষ্টি হয়েই থাকে তাই এতে আলাদা করে খুব বেশি চিনি ব্যবহার করার প্রয়োজন নেই।

চিনির মধ্যে কিছুটা জল দিয়ে আপনাদের সিরা তৈরি করে নিতে হবে। তবে মিশ্রনটি যেন খুব বেশি পাতলা না হয়। বেশ কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করলেই চিনি ঘন হয়ে যাবে। যদি আপনারা পারেন তাহলে একটু ক্যারামালাইজড করে নিতে পারেন। এরপর একটি পাত্রের মধ্যে আপনাদের কিছুটা পরিমাণ মিল্ক পাউডার নিয়ে তা ভালো করে গুলিয়ে নিতে হবে। আপনাদের কাছে পাউডার দুধ না থাকলে আপনারা কিন্তু লিকুইড দুধ ও ব্যবহার করতে পারেন।

অন্যদিকে চিনির সামান্য লালচে রং ধরে গেলে এরমধ্যে দুধের মিশ্রণটিকে আপনাদের ঢেলে দিতে হবে।। তারপর কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে এতে পারলে–জি বিস্কুটের তৈরি মিশ্রণটি কেউ ঢেলে দিন। এবারে বেশ কিছুক্ষণ এটিকে কড়াইতে ভেজে নেওয়ার পরে যখন ঘন একটা আস্তরণ তৈরি হয়ে যাবে তখন সেটাকে তুলে অনেকটা লাড্ডুর মতন গোল গোল বা প্যাড়ার মতন আপনাদের তৈরি করে নিতে হবে। ব্যাস তৈরি হয়ে গেল আপনাদের এই বিশেষ রেসিপি।

বিস্কুটের তৈরি এই রেসিপিটি তৈরি হয়ে যাওয়ার পর আপনারা চাইলে কিন্তু ড্রাই ফ্রুট বা চকো চিপস দিয়ে এটির উপরিভাগে খুব সুন্দর করে ডেকোরেশন করে নিতে পারেন। একদিন বানালে বেশ কিছুদিন পর্যন্ত আপনারা এটিকে সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন। সুতরাং খুব সহজেই এটি বাচ্চাদের টিফিনে বা বিকেলের টিফিন খাওয়ার জন্য আপনারা ব্যবহার করতে পারেন। বিশেষ এই প্রতিবেদনটি আপনাদের কেমন লাগলো তা অবশ্যই জানাতে ভুলবেন না।

Back to top button