খুবই অল্প সময়ে বাড়িতে এই সহজ দুর্দান্ত উপায়ে বানিয়ে ফেলুন দারুণ সুস্বাদু ক্ষীরসা পাটিসাপটা পিঠা!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- পিঠে পুলির প্রতি কিন্তু মানুষের এক প্রকার আলাদাই আবেগ রয়েছে। আজকাল দোকানেও অনেক ধরনের পিঠে বিভিন্ন সময় কিনতে পাওয়া যায়। তবে সেই সব পিঠের মধ্যে কিন্তু বাড়ির স্বাদ কোনো রকম ভাবেই থাকে না। পিঠার মধ্যে অন্যতম একটি হল পাটিসাপটা। আজকে আমরা আপনাদের সাথে বিশেষত নতুন গৃহিণীদের সাথে একটি রেসিপি শেয়ার করে নিতে চলেছি। এটি হলো দেশীয় স্টাইলে পাটিসাপটা। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

পাটিসাপটা তৈরি করার পদ্ধতি:

১) পাটিসাপটা তৈরি করার জন্য আপনাদের প্রথমেই কিন্তু একটা বড় পাত্রের মধ্যে পর্যাপ্ত পরিমাণে চালের গুঁড়ো নিয়ে নিতে হবে। এই চালের গুড়োটা যদি আপনারা বেশ কিছু দিন আগে ফ্রিজের মধ্যে রেখে দিতে পারেন তাহলে খুবই ভালো হয়। আপনারা যদি চান তাহলে কিন্তু এখানে শুকনো চালের গুড়ো ব্যবহার করতে পারেন। এরপর এই চালের মধ্যে আপনাদের দিয়ে দিতে হবে হাফ কাপ পরিমাণ ময়দা, সামান্য পরিমাণে গুঁড়ো দুধ, এক চা চামচ লবণ এবং হাফ কাপ পরিমাণে চিনি। যদি আপনাদের মনে হয় চিনির জায়গায় গুড় ব্যবহার করতে পারেন। এবারে একটি হ্যান্ড ব্লেন্ডারের সাহায্যে শুকনো উপকরণ গুলি কে আপনাদের ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। মেশানো হয়ে গেলে অল্প অল্প করে ঠান্ডা জল যোগ করে আপনাদের একটা ব্যাটার তৈরি করে নিতে হবে।

২) ব্যাটার তৈরি করে নেওয়ার পরে একবার ভালো করে চেক করে নিন এটা খুব বেশি ঘন হয়ে গিয়েছে কিনা। এবার আপনাকে কিন্তু পিঠে তৈরির জন্য ক্ষীরসা রেডি করে নিতে হবে। এটি তৈরি করার জন্য গ্যাসে একটি পাত্র বসিয়ে এক লিটার পরিমাণ দুধ এর মধ্যে দিয়ে দিন। যতক্ষণ পর্যন্ত না দুধে বলক আসছে ততক্ষণ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে থাকুন। দুধে বলক চলে আসলে এতে সামান্য পরিমাণে এলাচ পাউডার যোগ করে দিন। এই পর্যায়ে এতে সামান্য পরিমাণ চিনি আপনাদের যোগ করে দিতে হবে।

ভালো করে জাল দিয়ে আপনাদের এই দুধের পরিমাণ অর্ধেক করে নিতে হবে। জাল করতে করতে যখন দেখবেন দুধের চারপাশে সর জমা হয়েছে, ভালোভাবে এটাকে দুধের মধ্যে মিশিয়ে দিতে হবে এবং নাড়াচাড়া করতে হবে যাতে তলা না লেগে যায়।

৩) কিছুক্ষণ জাল করার পর আপনারা দেখবেন দুধ কিন্তু অর্ধেকের থেকেও অনেকটাই কমে এসেছে। প্রসঙ্গত দুধ গ্যাসে বসানোর আগে সামান্য একটু দুধ আপনাদের আলাদা করে রাখতে হবে চালের গুঁড়ো মেশানোর জন্য। এবারে এই চালের গুঁড়ো মিশ্রিত দুধ আপনাদের প্যানে থাকা জাল করা তরল দুধের মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। এই চালের গুঁড়ো যদি আপনারা দুধে যোগ করতে পারেন তাহলে সেটা তাড়াতাড়ি ঘন হয়ে যাবে এবং ক্ষীরসা তৈরি হয়ে যাবে। কিছুক্ষণ অনবরত নেমে নিয়ে আপনাদের এর মধ্যে ২ টেবিল চামচ পরিমাণ গুড় মিশিয়ে নিতে হবে।

আপনারা এই কাজে আখের গুড় ব্যবহার করতে পারেন। এটা যোগ করার ফলে দুধের কালার দেখতে যেমন ভাল লাগবে ঠিক তেমনভাবেই একটা অসম্ভব ভালো ফ্লেভার তৈরি হবে। বেশ কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নেওয়ার পরে দেখবেন সম্পূর্ণ দুধটি ঘন হয়ে ক্ষীরসা তৈরি হয়ে গিয়েছে।

৪) এবার সর্বশেষ ধাপে কড়াইতে একটি তাওয়া বসিয়ে নিতে হবে। আগে থেকে যে ব্যাটার আপনারা তৈরি করে রেখেছিলেন সেটা এর মধ্যে এবার দিয়ে দিন। বেশ ভালো করে গোল রুটির মতন ছড়িয়ে আপনারা এটাকে দেবেন। তারপর আপনাদের যে কাজটি করতে হবে সেটা হল মিনিটখানে অপেক্ষা করে ব্যাটার সেদ্ধ হয়ে যাওয়ার পর এর মধ্যে ক্ষীরসা দিয়ে দিন। এবারে ভালো করে এটাকে রোল করে নিলেই কিন্তু পাটিসাপটা তৈরি হয়ে যাবে।

অত্যন্ত অল্প সময়ের মধ্যে সহজ পদ্ধতিতে আপনারা এভাবেই বাড়িতে তৈরি করে নিতে পারেন ক্ষীরসা পাটিসাপটা। আজকের এই বিশেষ রেসিপি আপনাদের কেমন লাগলো তা কিন্তু আমাদের কমেন্ট সেকশনে শেয়ার করে নিতে ভুলবেন না।

Leave a Comment