“জয় মা দুর্গা, ২১-এ বাংলায় মমতাহীন দ’স্যুকে ব’ধ করো’, মমতাকে দ’স্যু বলে বিঁ’ধলেন বিজেপি সাংসদ!

“জয় মা দুর্গা, ২১-এ বাংলায় মমতাহীন দ’স্যুকে ব’ধ করো’, মমতাকে দ’স্যু বলে বিঁ’ধলেন বিজেপি সাংসদ!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ভোট মুখি রাজ্যের রাজনীতিতে ফের কু কথা । বাঙালির পুজো আর হাতে গোনা কয়েকটা দিন তার সাথে সাথে দোরগোড়ায় চলে এসেছে বিধানসভার ভোট । কাজেই পুজোর সময় কে কাজে লাগিয়ে ও চলছে রাজনীতির প্রস্তুতি । মিটিং মিছিল থেকেছে অব্যাহত । তার সাথে সাথে চলছে আক্র-মণের পর পাল্টা আক্র-মণ। । কিন্তু কোথাও যেন বিজেপি জড়িয়ে যাচ্ছে বি-ত-র্কে একের পর এক কু-রু-চি-কর মন্তব্য করে । মানুষের আস্থা কোথাও যেন একে একে হারাতে শুরু করেছে বিজেপি ।

সোমবার তালড্যাংড়ায় দলীয় সভায়  বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকার জড়িয়ে পড়েন বি-ত-র্কে । ঐদিন দলীয় সভা থেকে তিনি এমন এক কু-রু-চি-কর মন্তব্য করে বসেন মুখ্যমন্ত্রীর বি-রু-দ্ধে যাকে ঘিরে পরে সৃষ্টি হয়েছে বি-ত-র্ক। যদিও এই বি-ত-র্ক সা-মা-ল দিতে তিনি তার বক্তব্যকে ব্যক্ত করার চেষ্টা করেছেন তবুও কোথাও যেন থামানো যায়নি সে বি-ত-র্ক কে ।

তিনি ওই সভা থেকে গ্রামবাসীদের উদ্দেশ্যে বলেন যে গ্রাম চলো প্রকল্পে যদি কোন তৃণমূল কর্মীরা ভোট চাইতে আসে তবে তাদের পিছনে লাথি মেরে বের করা হয় যেন । এর পাশাপাশি তিনি মুখ্যমন্ত্রী সম্বন্ধে করে বসেন কু-রু-চি-ক-র মন্তব্য । তিনি বলেন মা দুর্গা সামনে একুশের ভোটে মমতাহীন দস্যু কে তুমি বদ করো । তারপর থেকে শুরু হয়ে গেছে শোরগোল রাজনীতি মহলে । যদিও ঘটনা সামাল দিতে তিনি তার বক্তব্যকে ব্যাখ্যা করার চেষ্টা করেছেন তবুও সেই ব্যাখ্যা শুনতে নারাজ তৃণমূল ।

এর পাশাপাশি পাল্টা প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেছে তৃণমূলে থেকে । বাঁকুড়া জেলা তৃণমূল সাংসদ বলেছেন যে একজন শিক্ষিত মানুষের মুখে এই ধরনের কথা শোভা পায় না ।মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী সম্বন্ধে এর ধরনের কু-রু-চি-ক-র মন্তব্যের তীব্র নিন্দা জানায় ।তার পাশাপাশি বাঁকুড়া জেলায় কোন তৃণমূল কর্মীর যদি আ-ঘা-তপ্রাপ্ত হয় তাহলে তার জন্য দা-য়ী থাকবেন আপনি ।স্বাভাবিকভাবে ওই বি-ত-র্কে-র পর কিছুটা হলেও অস্বস্তিতে পড়েছে গেরুয়া শিবির ।

,

Leave a Reply

Your email address will not be published.