“বাপ্পি লাহিড়ী না থাকলে আজকে মিঠুন চক্রবর্তীও থাকতো না!”- মিঠুন চক্রবর্তীর সফল ক্যারিয়ার গঠনে বাপ্পি লাহিড়ীর ভূমিকা কতটা? জানুন বিস্তারিত!

“বাপ্পি লাহিড়ী না থাকলে আজকে মিঠুন চক্রবর্তীও থাকতো না!”- মিঠুন চক্রবর্তীর সফল ক্যারিয়ার গঠনে বাপ্পি লাহিড়ীর ভূমিকা কতটা? জানুন বিস্তারিত!

নিজস্ব প্রতিবেদন:সদ্য দিন দুয়েক আগে প্রয়াত হয়েছেন বলিউডের জনপ্রিয় সংগীত পরিচালক তথা গায়ক বাপ্পি লাহিড়ি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল মাত্র 69 বছর। আশির দশকে বলিউডে একাধিক জনপ্রিয় গানের স্রষ্টা এই বাপ্পি লাহিড়ী। বলিউডে তিনি শেষবার কাজ করেছিলেন বাগি থ্রি চলচ্চিত্রে।

তার একাধিক আইকনিক গান গুলোর মধ্যে অন্যতম জিমি জিমি আজা আজা, চলতে চলতে, ডিস্কো ড্যান্সার প্রভৃতি। এদিন বাপি লাহিড়ীর মৃত্যুর পর একটি প্রশ্ন বেশ কয়েকবার উঠতে দেখা গিয়েছে।তার অনুরাগীদের একাংশের মতে বাপ্পি লাহিড়ীর একটি গান অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীকে জনপ্রিয়তা পেতে দারুন সাহায্য করেছিল।

প্রসঙ্গত বলিউডে কাজ শুরু করার প্রথম দিকেমিঠুন চক্রবর্তী কে বারবার প্রত্যাখ্যানের মুখোমুখি হতে হয়েছিল।একাধারে যেমন তার গায়ের রং ছিল শ্যমলা ঠিক তেমনভাবেই অনেক পরিচালকের কথা ছিল তিনি নাচতে পারেন না। যদিও এর পরে অনেক চেষ্টায় ডিস্কো ড্যান্সার ছবিতে সুযোগ পান মিঠুন চক্রবর্তী।

এই সিনেমার সংগীত পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন প্রয়াত সঙ্গীত পরিচালক বাপ্পী লাহিড়ী তবে শুধুমাত্র ডিস্কো ড্যান্সার নয় বরং ‘ইয়াদ আ রাহা হ্যায়’ গানটিও দারুন জনপ্রিয় হয়েছিল এই সিনেমার অ্যালবাম থেকে। পাশাপাশি সেই গানের হাত ধরেই বলিউডে সফল ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী।

এরপর বলিউডে একাধিক জনপ্রিয় চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন মিঠুন।পরবর্তীতে এক সাক্ষাৎকারে তিনি নিজেও এই চলচ্চিত্রে অভিনয়ের সময় বাপ্পি লাহিড়ীর কৃতিত্বের কথা জানিয়েছিলেন। হয়তো বাপ্পি লাহিড়ী না থাকলে কোন দিন বলিউডে নিজের ক্যারিয়ার গড়তে পারতেন না মিঠুন।

কিংবদন্তি এই সংগীতশিল্পীর মৃত্যুতে অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীও অত্যন্ত শোকাহত। প্রসঙ্গত বার্ধক্য জনিত সমস্যার জেরে গত মঙ্গলবার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন বাপ্পি লাহিড়ী। এরপর বুধবার সকালেই প্রয়াত হন তিনি।


Leave a Reply

Your email address will not be published.