“আমি অভি ছাড়া আর কারোর নই!”, দ্বিতীয় বিয়ের প্রস্তাবে এবার চটে গেলেন অভিষেক পত্নী সংযুক্তা!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আচমকাই চলতি বছরের মার্চ মাসের হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পরিবার পরিজন এবং ভক্তদের ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন জনপ্রিয় অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়। আজ প্রায় সাত মাস সময় ধরে একাই জীবন কাটাচ্ছেন অভিষেকের স্ত্রী সংযুক্তা এবং মেয়ে সাইনা। অভিষেকের মৃত্যুর পর তাদের জীবন অনেকটাই পরিবর্তন হয়ে গিয়েছে। যদিও প্রতিমুহূর্তেই তারা অভিষেকের স্মৃতিচারণ করতে ভোলেন না।

তবে চলতি বছর দুর্গা পুজোটা কিন্তু রীতিমতো একাই কাটিয়েছেন তারা। বাড়িতে পুজো বন্ধ করে কেরলে ঘুরতে গিয়েছিলেন তারা। সেখান থেকে নিজেদের ছবি সকলের সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছেন সংযুক্তা। সেই ছবিতেই মন্তব্যের বন্যা। তবে সে মন্তব্যের মধ্যে থেকেই এবার একজনকে রীতি মতন বেশ করা ভাষাতেই জবাব দিয়েছেন সংযুক্তা। প্রসঙ্গত কেরল থেকে বেশ কয়েকটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে নেওয়ার পর সংযুক্তার পোস্টে একজন মন্তব্য করেন, “আপনি আবার বিয়ে করুন। নতুন ভাবে নিজের জীবন শুরু করুন। এই ভাবে কত দিন স্মৃতি আকঁড়ে থাকবেন।”

এই কথা শুনে চুপ থাকেননি সংযুক্তাও, লিখেছেন, “এমন কথা আর আপনি কখনও বলবেন না। অভি সারা ক্ষণ আমাদের সঙ্গে আছে।” বোঝাই যায় এই ব্যাপারটিতে কিছুটা ক্ষুদ্ধ হয়েছিলেন তিনি। পরে সংবাদ মাধ্যমের সামনে নিজের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে সংযুক্তা চট্টোপাধ্যায় বলেন, “ধরার তাড়া। তার ফাঁকেই সটান উত্তর। তিনি বললেন, “আসলে একা মেয়ে দেখলেই মানুষ নানা ধরনের মন্তব্য করে। অভি নেই, ভাবছে আমরা অসহায়। আদতে তা নয়।

আমরা আমাদের জীবন গুছিয়ে নিয়েছি। অনেকে তো আবার আমায় অভিনয় করার কথা বলেছিল। একা মেয়ে থাকলে তাঁদের দুর্বল কি ভাবতেই হবে?” সঙ্গে আরো যোগ করে অভিষেকের স্ত্রীর বক্তব্য, “আমি মনে করি ভালবাসা এক বার হয়, বিয়েও এক বারই করা যায়। আমি শুধুই অভির। আর কারও না। পৃথিবীকে অভি আর ডল ছাড়া আর কেউ গুরুত্বপূর্ণ নয়”। সংযুক্তার এই মন্তব্যের পরে সকলেই বুঝতে পেরেছেন তার জীবনে অভিষেকের গুরুত্ব কতখানি।

সারাটা জীবন অভিনেতা স্মৃতিকে আঁকড়ে ধরেই বেঁচে থাকতে চান তিনি। প্রসঙ্গত চলতি বছরের মার্চ মাসে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন অভিনেতা। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৭ বছর।অভিনয় ছিল তাঁর প্রাণ। লাইট, ক্যামেরা, অ্যাকশন নিয়ে বাঁচতেন তিনি। শ্যুট করতে করতেই পৃথিবী ছেড়ে চলে যান অভিষেক চট্টোপাধ্যায়। মৃত্যুর শেষ সময়েও শুটিং ফ্লোরেই ছিলেন তিনি। ধীরে ধীরে অসুস্থতা বাড়তে থাকায় তাকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

হাসপাতালে ভর্তির কথা চললেও তিনি বাড়িতে ফিরে আসেন এবং স্যালাইন নিয়ে শুয়ে পড়েন। এরপর রাত ১ টা বেজে ৪০ মিনিট নাগাদ প্রয়াত হন অভিনেতা। কেরিয়ারের শুরুর দিকে অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায় বেশ কিছু সুপারহিট সিনেমাতে অভিনয় করলেও তারপর ধীরে ধীরে বড় পর্দায় কাজ বন্ধ করে দিয়েছিলেন তিনি। বর্তমানে ছোট পর্দার বিভিন্ন ধারাবাহিকে তার অভিনয় অত্যন্ত পরিচিত ছিল দর্শক মহলে।

Back to top button