সামনে কালীপুজোতে খুব সহজ এইভাবে বাড়িতেই করুন ইউনিক হেয়ার স্টাইল, লাগবে ভারী সুন্দর!

নিজস্ব প্রতিবেদন: হাতে আর মাত্র কয়েক দিনের অপেক্ষা। তারপরেই শুরু হয়ে যাবে দীপাবলি তথা কালীপুজোর প্রস্তুতি। উৎসবের মরশুমে তাই আমরা আজকে আপনাদের জন্য নিয়ে চলে এসেছি হেয়ার স্টাইলের টিউটোরিয়াল। আপনারা যারা কমবেশি উৎসবের দিনগুলিতে নিজেকে নতুন সাজে সাজাতে পছন্দ করে থাকেন তাদের জন্য কিন্তু আজকের এই প্রতিবেদনটি ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ।

কারণ যে কোন মেকআপ বা লুকের সাথেই কিন্তু মানানসই হেয়ার স্টাইল করাটা ভীষণভাবে প্রয়োজনীয়। চলুন তাহলে আর সময় নষ্ট না করে আজকের এই প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য অনেকেই সহজ বা সিম্পল হেয়ার স্টাইল পছন্দ করে থাকেন; আবার অনেকেই কিন্তু একটু ভারী কাজের হেয়ার স্টাইল পছন্দ করে থাকেন। তবে অবশ্যই আপনাকে নিজেদের পোশাক-আশাকের সাথে মানানসই হেয়ার স্টাইল কিন্তু বেছে নিতে হবে।

দীপাবলি বা কালীপুজো স্পেশাল বিশেষ কিছু হেয়ার স্টাইল:

১) আজকের সবার প্রথমে আপনাদের সাথে যে হেয়ার স্টাইলটা শেয়ার করে নেব তাতে আপনাদের চুলটাকে ভালো করে আচড়ে নিয়ে রোল এন্ড ফোল্ড করে নিতে হবে। ফোল্ড করার পরে হেয়ার পিনের সাহায্যে এটাকে আটকে দিন। দুই দিকেই কিন্তু আপনারা এটা করবেন। এরপর পেছনের চুলটাকে আপনাদের একটা সোজা গিট দিয়ে দিতে হবে। তারপর দুটো দিকে এটাকে রোল করে ফেলুন।

যতটা সম্ভব টাইট করে আপনাকে এটা রোল করতে হবে। একটা সাইড রোল হয়ে গেলে সেটাকে খোপার মতন করে ঘুরিয়ে আপনাদের পিন দিয়ে আটকে নিতে হবে। অন্য দিকটা কেউ সেম ভাবে রোল এন্ড ফোল্ড করে কভার করে নিতে হবে। এরপর চাইলে আপনারা অরিজিনাল বা আর্টিফিশিয়াল গজরা ব্যবহার করে নিতে পারেন।

২) দ্বিতীয় হেয়ার স্টাইলটা করার জন্য আপনাদের প্রথমেই সামনে পাফ করে নিতে হবে। এরপর পেছনের চুলের অংশটাকে আপনাদের হাত খোপা করে নিতে হবে। তারপর ভালো করে পিন দিয়ে আটকে ফেলুন। এরপর যেকোনো আর্টিফিশিয়াল গজরা ব্যবহার করে খোঁপাটাকে কভার করে নিলেই কিন্তু দারুন লাগবে। চাইলে আপনারা খোপার ঠিক মাঝ বরাবর তাজা গোলাপ ফুলের পাপড়ি ক্লিপের সাহায্যে আটকে দিতে পারেন।

৩) এরপর তৃতীয় হেয়ার স্টাইল যেটা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি সেটাতে প্রথমে চুল ভালো করে কম্ব করে নিয়ে আপনাদেরকে আবারো রোল এন্ড টুইস্ট করে নিতে হবে। চেষ্টা করবেন সামনের দিকটা একটু টেনে নিতে যাতে একটা পাফ মতন দেখতে লাগে। চাইলে আপনারা এবার পেছনের চুলটাকে ছেড়েও রাখতে পারেন। খোলা চুল কিন্তু সবসময়ই দেখতে সুন্দর লাগে যদি ঠিকভাবে ম্যানেজ করা হয়ে থাকে।

এছাড়া আরও একটা কাজ এখানে করতে পারেন যেটা হলো চুলটাকে দু’ভাগে ভাগ করে ভালো করে গার্ডার দিয়ে বেঁধে নিতে হবে। এরপর সেটাকে টুইস্ট করে খুব শক্ত করে গার্ডারের সাথে বেঁধে নিতে হবে। এরপর এটাকে পেছনের দিকে করে ক্রিসক্রস করে নিলে কিন্তু দারুন একটা বান হেয়ার স্টাইল হয়ে যাবে। যেকোনো শাড়ির সাথেই কিন্তু আপনারা এটা ট্রাই করে দেখতে পারেন। আজকের শেয়ার করা হেয়ার স্টাইল গুলির মধ্যে আপনাদের কোনটা সবথেকে বেশি ভালো লাগলো তা কিন্তু আমাদের সঙ্গে শেয়ার করে নিতে অবশ্যই ভুলবেন না।

Back to top button