মাথার চুল হবে আরও বেশি লম্বা ও কালো কুচকুচে, শুধু শ্যাম্পুর সাথে লাগান এই জিনিস

নিজস্ব প্রতিবেদন: চুল নিয়ে কিন্তু কমবেশি সকলেই নানান ধরনের সমস্যায় পড়ে থাকেন। চুল পড়া থেকে শুরু করে চুল পাতলা হয়ে যাওয়া সবকিছুই কিন্তু রীতিমতন বড় সমস্যার মধ্যে পড়ে। অনেকের ক্ষেত্রে কিন্তু অত্যন্ত কম বয়স থেকেই এই ঘটনা ঘটে থাকে। বাজারচলতি বিভিন্ন উপাদান ব্যবহার করে খুব সহজেই কিন্তু এই সমস্যা থেকে অনেকে মুক্তি পাওয়ার চেষ্টা করেন।

তবে তা না করে আপনারা যদি ঘরোয়া কিছু টিপস ট্রাই করেন তাহলে কিন্তু অল্প খরচের মধ্যেই হয়তো আপনাদের এই সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে পারে। পাঠকদের উদ্দেশ্যে জানিয়ে রাখি শ্যাম্পুর সাথে মাত্র দুটি উপাদান মিশিয়ে যদি আপনারা ব্যবহার করতে পারেন তাহলে কিন্তু চুল পড়া থেকে শুরু করে নানান ধরনের সমস্যা অচিরেই বন্ধ হয়ে যাবে। চলুন তাহলে সময় নষ্ট না করে প্রতিবেদনের মূল পর্বে যাওয়া যাক।

চুলের বিভিন্ন সমস্যায় বিশেষ রেমিডি:

১)এই ক্ষেত্রে আপনাদের প্রথমেই একটি ছোট পাত্র নিয়ে নিতে হবে এবং তার মধ্যে নিয়ে নিতে হবে কিছুটা পরিমাণে কালোজিরা। কালোজিরে শুধু রোগবালাই দূরে রাখে এমনটাই নয় আমাদের চুলের জন্যও কিন্তু ম্যাজিকের মতন কাজ করে। এবার কালোজিরার সঙ্গে আপনারা যোগ করুন ৩টে এলাচ। অনেক কিছু ব্যবহার করার পরেও যাদের চুল ঠিকভাবে বড় হচ্ছে না তাদের জন্য এলাচ কিন্তু ভীষণভাবে কার্যকরী একটি উপাদান। তবে এলাচ কিন্তু আপনারা অবশ্যই খোসা ছাড়িয়ে শুধুমাত্র বীজের অংশটি এখানে নেবেন।

এর মধ্যে সামান্য পরিমাণে লেবুর রস আর আধা চামচ জল যোগ করে একটা মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এবার এই সমস্ত উপকরণকে তিন থেকে চার ঘণ্টা এই অবস্থাতেই ভিজিয়ে রাখুন। কয়েক ঘন্টা পর দেখবেন খুব সুন্দর সমস্ত উপকরণের ফ্লেভার জলের মধ্যে চলে আসবে। এবার বেশ কিছুক্ষণ সময় পরে আপনাদের এই জল ছেঁকে অন্য পাত্রে নিয়ে নিতে হবে।

২) এরপর এই ছেঁকে নেওয়া জলের মধ্যে আপনাদের একটি ছোট পেঁয়াজ থেঁতো করে রস বের করে সেটাকেও দিয়ে দিতে হবে। পেঁয়াজের রস কিন্তু চুল সিল্কি করা থেকে শুরু করে খুশকি থেকে রক্ষা, অকালে চুল পড়ে যাওয়া প্রভৃতি সমস্যায় দারুন সাহায্য করে থাকে। কম-বেশি আপনার হয়তো অনেকেই অনিয়ন অয়েল চুলের জন্য ব্যবহার করেছেন। যাইহোক এই জলের মধ্যে পেঁয়াজের রস দেওয়ার পর আপনাদের দিয়ে দিতে হবে একটি ডাভ শ্যাম্পু। আপনারা চাইলে নিজেদের ইচ্ছে মতন যে শ্যাম্পু ব্যবহার করেন সেটাও এখানে দিতে পারেন। সমস্ত উপকরণ গুলিকে এবার চামচের সাহায্যে ভালো করে একসঙ্গে মিশিয়ে নিন।

৩) সপ্তাহে যেদিন আপনারা শ্যাম্পু করেন ঠিক সেদিনই এই ধরনের শ্যাম্পু তৈরি করে অবশ্যই ভালো করে চুলে তিন থেকে চার মিনিট পর্যন্ত লাগিয়ে নেবেন। ম্যাসাজ করার পর পারলে চুল কিছুক্ষণ সময় বেঁধে রেখে দেবেন যাতে এই সম্পূর্ণ মিশ্রণটি চুলের একেবারে গোড়া পর্যন্ত পৌঁছে যায়। তারপর সাধারণ জল দিয়ে আপনারা ভালো করে ধুয়ে নরম তোয়ালে দিয়ে মাথা মুছে নিলেই কাজ হয়ে যাবে।

অন্ততপক্ষে সপ্তাহে একদিন যদি আপনারা এই রেমিডি ট্রাই করতে পারেন তাহলে ফলাফল হাতেনাতেই বুঝতে পারবেন। আজকের এই বিশেষ টিপস আপনাদের কতটা কাজে লাগল তা কিন্তু অবশ্যই আমাদের সঙ্গে প্রতিবেদনের কমেন্ট বক্সে শেয়ার করে নিতে ভুলবেন না।

Back to top button