নিউজভিডিও

সমালোচনা ও অ’শ্লী’নতার সীমা ছাড়ানো পাঁচটি বাংলা সিনেমা, যা কোনো প’র্ন মুভির থেকে কম নয়, রইলো ভিডিও সহ

নিজস্ব প্রতিবেদন:- বাংলা অভিনয় জগত এখন রমরমিয়ে চলছে এ কথা অস্বীকার করার কোনো উপায় নেই। নব্বই দশকে এমন একটা সময়ে এসে ছিল যখন বাংলা অভিনয় জগতের সাথে যুক্ত টেকনিশিয়ানদের পেটে ভাত জোগাড় হবার প্রশ্ন উঠেছিল। অর্থাৎ খুব বাজে একটা সময় যাচ্ছিল তখন বাংলা ইন্ডাস্ট্রির উপর। কিন্তু সেই সময় দাঁড়িয়ে পুনরায় বাংলা অভিনয় জগত কে তুলে ধরেছিলেন বেশকিছু অভিনেতা এবং অভিনেত্রী তাদের মধ্যে রঞ্জিত মল্লিক ভিক্টর ব্যানার্জীর প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জী র মতো যেমন অভিনেতারা ছিলেন ঠিক এরকমই ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত মুনমুন সেন সুচিত্রা সেন এর মত অভিনেত্রীরাও যুক্ত ছিলেন। তবে বাংলা সিনেমার পাশাপাশি বেশকিছু সিনেমা বাংলাতে রয়েছে যা সম্পূর্ণ আলাদা ধরনের বার্তা প্রদান করে। আজকে আপনাদের সামনে সেই সমস্ত সিনেমার কিছু উদাহরণ দিতে চলেছে।

আমরা সাধারণত জানি প্রেম বা ভালোবাসা হয় বিপরীত লি-ঙ্গে-র প্রতি ।অর্থাৎ একটি ছেলে একটি মেয়ের প্রতি আকৃষ্ট হতে পারে এটা খুব স্বাভাবিক ঘটনা।এবং সমাজ সেটা কে স্বীকৃতি দেয় ।কিন্তু একটি মেয়ে আরেকটি মেয়ের প্রতি একটি ছেলে আর একটি ছেলের প্রতি আকৃষ্ট প্রেমে লিপ্ত হলে তাকে আমরা স-ম-কা-মী বলে থাকি ।যা বর্তমান প্রজন্মের অসামাজিক বলেই ধরা হয়ে থাকে ।এসব ঘটনা সামনে এলে আমাদের নাক সিঁট-কায়তে দেখা যায় ।আলাদা ধারণা জন্মায় সেই সব মানুষদের প্রতি। সমাজ থেকে কোথাও যেন দূরে ঠেলে দেওয়ার একটা প্রবণতা দেখতে পাওয়া যায়। কিন্তু বাংলা সিনেমাতে এমন বেশ কিছু সিনেমা রয়েছে যা শুধুমাত্র এসব ঘটনা নিয়েই তৈরি ।

নীল নির্জন বলে একটি বাংলা সিনেমা রয়েছে যেখানে অভিনয় করেছেন রাইমা সেন এবং তার মা মুনমুন সেন কে । সেখানে দেখানো হয়েছে কলকাতা থেকে বেশ কিছুটা দূরে নীল নির্জন বলে একটি রিসোর্টে পরিচয় হয় একটি মেয়ের সাথে ।যত দিন যায় তত বাড়তে থাকে তাদের সম্পর্ক। ঘ-নি-ষ্ঠ হতে থাকে আরো বেশি করে। এরপর তারা প্রেমে লিপ্ত হয়ে পড়েন এবং সেই ঘটনা নিয়ে পুরো গল্পটা তৈরি।

কয়েকটি মেয়ের গল্প ” বলে বাংলা সিনেমাতে একটি সিনেমা আছে যেখানে দেখানো হয়েছে কলকাতার বেশ কিছু মেয়ে তাদের শহরে এসকট সার্ভিস চালু করার ব্যবস্থা করে এবং সেই মতো তারা সেই ব্যবসা শুরু করেন। তবে কোথাও যেন সেটা পেটের দায়ে নয় বরং স্বভাবে করে। এর পাশাপাশি ওই সিনেমাতে লেসবিয়ান সম্পর্কে একটি পরিষ্কার চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।

তিন কন্যা” এমন এক ধরনের সিনেমা যেখানে স্বামীর অপ-হরণ নিয়ে অন্য এক প্রেমে জড়িয়ে যাওয়ার গল্প দেখানো হয়েছে । এখানে অপর্ণা এবং দামিনী বলে দুটি চরিত্র প্রাধান্য পেয়েছে। যেখানে অপর্ণা স্বামীকে অপ-হরণ করা হয় এবং সেই স্বামীর খোঁজ শুরু করতে অপর্ণা খোঁজ পায়নি দামিনীর এবং তাদের মধ্যে শুরু হয় প্রেম ।

ফ্যামিলি অ্যালবাম ” এই সিনেমায় অভিনয় করেছেন পাওলি দাম এবং স্বস্তিকা মুখার্জি । আমরা একটি ছেলের বন্ধু বলতে শুধুমাত্র ছেলেকে চিনে থাকি বা একটি মেয়ের বন্ধু বলতে ছেলেকে চীনে থাকি। কিন্তু এই ছবিতে সম্পূর্ণ উল্টো দেখানো হয়েছে। এখানে পাওলি দাম এবং স্বস্তিকা মুখার্জি একে অপরের প্রেমিক-প্রেমিকা। এবং তারা রীতিমতো সমাজের উল্টো স্রোতে হেঁটে প্রেম করছেন চুটিয়ে ।সেই ঘটনা নিয়ে তৈরি হয়েছে এই সিনেমাটি।

https://www.youtube.com/watch?v=MT_zrffVYIA&feature=youtu.be

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button