আপনি কি জানেন ফ্রিজ কখন বন্ধ রাখা উচিত কখনই বা অনুচিত? আজই জেনে রাখুন এই কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ টিপস

নিজস্ব প্রতিবেদন: আজকাল নতুন প্রযুক্তিতে যে সমস্ত ফ্রিজ তৈরি করা হয়ে থাকে সেগুলি কিন্তু বন্ধ করার বা অন্যান্য কিছু করার প্রয়োজন হয় না। তবে অনেকের মনেই কিন্তু প্রশ্ন থাকে যে ফ্রিজ কখনো বন্ধ করা উচিত কিনা আর করলেও ঠিক কিরকম সময়ে এটা বন্ধ করা উচিত!

প্রসঙ্গত আগেকার সময় যে সমস্ত ফ্রিজ প্রচলিত ছিল সেগুলি কিন্তু দিনের মধ্যে একটা নির্দিষ্ট সময় বন্ধ রাখার কথা বলা হত। এবার বর্তমানে সেটা আদৌ কার্যকরী কতটা সেটা অবশ্যই আপনাদের জেনে নেওয়া উচিত। চলুন আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক এবং জেনে নেওয়া যাক কিছু বিস্তারিত তথ্য।

১) ফ্রিজ কি বন্ধ রাখলে খারাপ হয়ে যায়?

দিনের মধ্যে  নির্দিষ্ট সময় ফ্রিজ বন্ধ রাখলে কিন্তু সেটা কখনোই খারাপ হয়ে যায় না। তবে যদি আপনি দীর্ঘ সময় ধরে এটা বন্ধ রাখেন তাহলে কি হবে সেটা জানা নেই। তবে দীর্ঘ সময় ধরে যদি কোন ইলেকট্রিক জিনিস আপনারা ফেলে রেখে দেন ব্যবহার না করে সেটা কিন্তু খারাপ হতে বাধ্য।এখন যদি একমাসের জন্য কেউ বাইরে যান, তিনি অবশ্যই ফ্রিজ বন্ধ করে যাবেন। তাতে ফ্রিজ খারাপ হবে না। বরং কয়েকদিনের জন্য ফ্রিজের কম্প্রেসার রেস্ট করতে পারবে। ফ্রিজ বন্ধ রাখার কিন্তু কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম রয়েছে।

প্রথমত দীর্ঘ সময়ের জন্য যদি ফ্রিজ বন্ধ রাখতে হয় সেক্ষেত্রে কিন্তু শুধুমাত্র সুইচ বন্ধ করলেই হবে না আপনাদের প্লাগ খুলে দিতে হবে। এই সময়ে ফ্রিজের ভেতরে কোন জিনিস রাখা যাবে না।

দ্বিতীয়ত, মাসখানেকের সময়ের জন্য যদি ফ্রিজ বন্ধ রাখতে হয় সেক্ষেত্রে ফ্রিজে কিছু না ভরে আপনারা এটাকে চালু করবেন।বহুদিন যাবত বন্ধ থাকলে সঙ্গে সঙ্গে তাতে জিনিস রেখে অন করবেন না এতে কম্প্রেসারে চাপ পড়বে।

২) রোজ কি ফ্রিজ বন্ধ রাখা উচিত?

আধুনিক প্রযুক্তিতে যে সমস্ত ফ্রিজ গুলি তৈরি করা হয়ে থাকে সেগুলি কিন্তু বন্ধ রাখার প্রয়োজন নেই।ইনভার্টার থাকা ফ্রিজে কম্প্রেসার বিভিন্ন গতিতে চলতে সক্ষম। তাই তা বন্ধ করার দরকার নেই। এক্ষেত্রে কম্প্রেসারের গতি তাপমাত্রা অনুযায়ী কমতে বাড়তে থাকে। যদি আপনাদের ফ্রিজে খুব বেশি জিনিস না থাকে এবং ফ্রিজ ঠান্ডা থাকে সেক্ষেত্রে কিন্তু মোটামুটি চার ঘন্টা সময় পর্যন্ত আপনারা এটাকে রেস্ট দিতে পারেন।

৩) ফ্রিজ পরিষ্কার করার আগে কি বন্ধ করে দেওয়া উচিত?

পাঠকদের উদ্দেশ্যে জানিয়ে রাখি অবশ্যই কিন্তু ফ্রিজ পরিষ্কার করার আগে আপনাদের এটাকে বন্ধ করে নিতে হবে। ফ্রিজের দরজা খোলা রেখেই ভেতরের সমস্ত জিনিস প্রথমে আপনাদের বের করে নিতে হবে।ভালো করে ফ্রিজ ও ফ্রিজার পরিষ্কার করবেন। পরিষ্কার হয়ে যাওয়ার সাথে সাথে জিনিস রাখবেন না। ফ্রিজ অন করে ১৫ মিনিট দরজা বন্ধ করে রাখবেন। এরপর ধীরে ধীরে আপনারা এর মধ্যে প্রয়োজনীয় সমস্ত জিনিস কিন্তু রাখতে পারবেন।

৪) রাতে ফ্রিজ বন্ধ রাখলে কি ঠিক হবে?

অনেকেই কিন্তু রাতের দিকে ফ্রিজ বন্ধ করে রাখেন এটা একেবারেই উচিত নয়। তবে যদি কোন রকমের খাদ্য সামগ্রী এর মধ্যে না থাকে তবে যখন ইচ্ছা আপনারা ফ্রিজ বন্ধ রাখতে পারেন।তবে ফ্রিজে জিনিস থাকলে রাতে তা বন্ধ রাখা সঠিক নয়। ফ্রিজ বন্ধ থাকলে জিনিস নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। আর আগেই বলেছি পূর্ণ ঠাণ্ডা থাকলে ফ্রিজ ৪ ঘণ্টা বন্ধ রাখা যায়।

৫) ফ্রিজ বন্ধ রাখার সঠিক সময়:

যদি আপনারা একান্তই ফ্রিজ বন্ধ রাখতে চান সেক্ষেত্রে কিন্তু কিছু সঠিক সময় রয়েছে আপনাদের অবশ্যই এই ব্যাপারটি মাথায় রাখতে হবে।

1. যদি আচমকাই কারেন্ট চলে যায় সেক্ষেত্রে আপনারা ওই সময় ফ্রিজ বন্ধ করে দিতে পারেন। কারণ হঠাৎ করে কারেন্ট চলে এলে কিন্তু ফ্রিজ চালু হলে অনেকটাই বিল উঠে যাবে একধাক্কায়। আবার অনেক ক্ষেত্রেই এই ঘটনা ঘটলে ফ্রিজের কম্প্রেসার এর উপরে ও মারাত্মক রকমের চাপ পড়ে।

2. ভোল্টেজ যদি কোন কারণে লো হয়ে যায় এবং ইনভার্টার না লাগানো থাকে সেক্ষেত্রে অবশ্যই আপনারা কিন্তু এটি বন্ধ করে দেবেন। তবে নতুন জেনারেশনের ফ্রিজ হলে আলাদা ব্যাপার। কারণ নতুন জেনারেশনের ফ্রিজ গুলিতে কিন্তু মডার্ন ইনভার্টার লাগানো থাকে।

3. প্রাকৃতিক দুর্যোগ চলাকালীন যদি কোন সময় বিদ্যুৎ চমকায় সেক্ষেত্রে কিন্তু অবশ্যই আপনারা ফ্রিজ বন্ধ করে দেবেন। এই সময় কিন্তু কোন রকমের রিক্স নেবেন না।

Back to top button