ফুটন্ত গরম জলে ১টা কয়েল রাখলে কী হয় জানেন? অনেক মানুষেরই এই বিষয়টি অজানা

নিজস্ব প্রতিবেদন: আচ্ছা আপনার বাড়িতে কি প্রতিনিয়ত পোকামাকড়ের উপদ্রব বেড়ে চলেছে? আরশোলা থেকে শুরু করে অন্যান্য পোকামাকড় কি আপনার বাড়িতে সমস্যা সৃষ্টি করছে! তাহলে আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি কিন্তু আপনাদের জন্য। প্রসঙ্গত অনেক সময় দেখা যায় বিভিন্ন কারণে আমাদের বাড়িতে কিন্তু পোকা মাকড় যেমন টিকটিকি, আরশোলা ইত্যাদির উপদ্রব বেড়ে গিয়ে থাকে। বাজার চলতি বিভিন্ন উপকরণ ব্যবহার করে আপনারা খুব সহজেই এই পোকামাকড় দূর করতে পারেন।

তবে তা খুব একটা কার্যকরী হয় না। অন্যদিকে এই সমস্ত পোকামাকড় বেড়ে যাওয়ার কারণে বাড়িতে কিন্তু রোগ ব্যাধি সৃষ্টি হয় এবং ঘর বাড়ি আনহাইজেনিক হয়ে ওঠে। আপনার বাড়িতে যদি পোষা প্রাণী বা ছোট শিশু থাকে তখন বিভিন্ন বিষাক্ত পদার্থ দিয়ে কিন্তু এই পোকামাকড় আপনারা তাড়াতে পারবেন না। তাই আপনাদের অতি অবশ্যই প্রয়োগ করতে হবে বিকল্প কোন পদ্ধতি। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের একটি স্প্রে তৈরি করার কৌশল শেখাবো সঙ্গে থাকবে আরো বিশেষ কিছু উপায়, যার সাহায্যে খুব সহজেই আপনারা বাড়ি থেকে পোকামাকড়ের উপদ্রব কমিয়ে ফেলতে পারবেন। চলুন তাহলে আর দেরি না করে শুরু করা যাক।

বাড়ি থেকে আরশোলা তাড়ানোর বিশেষ উপায়:

১) প্রথম পদ্ধতিতে আমরা একটি স্প্রে তৈরীর কথা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব। যেটি তৈরি করতে গেলে আপনাদের প্রথমেই একটি পাত্রের মধ্যে পরিমাণ মতন জল নিয়ে সেটাকে হালকা গরম করে নিতে হবে। জল কিছুটা গরম হয়ে আসলে একটি মর্টিনের কয়েল নিয়ে এই জলের মধ্যে দিয়ে দিন।। তারপর আরো তিন থেকে চার মিনিট আপনাদের জল ফুটিয়ে গ্যাস থেকে নামিয়ে নিতে হবে। লক্ষ্য করে দেখবেন এতে মর্টিন অনেকটাই নরম হয়ে গিয়েছে। এবার হাতের সাহায্যে এটিকে জলের মধ্যে খুব ভালো করে আপনাদের গুলিয়ে নিতে হবে।।

এই কাজটি করার সময় আপনারা কিন্তু অবশ্যই হাতে গ্লাভস পড়ে নিতে ভুলবেন না। এরপর মর্টিন জল একটি ছাকনির সাহায্যে ছেঁকে নিন। দেখবেন এটির দুটি অংশ তৈরি হয়ে যাচ্ছে অর্থাৎ একটা লিকুইড তরল এবং অন্যটা হল যেটা ছাকনির মধ্যে আটকে থাকবে সেই ঘন অংশটি।। লিকুইড তরলটিকে একটি অন্য পাত্রে নিয়ে নিতে হবে এবং সেটার মধ্যে মিশিয়ে দিতে হবে ১ চামচ ডিটারজেন্ট পাউডার, এক চামচ বেকিং সোডা এবং বোরিক অ্যাসিড।

আশেপাশের যেকোন দোকানে কিন্তু আপনারা বোরিক অ্যাসিড আর বেকিং সোডা কিনতে পেয়ে যাবেন। জলের সাথে এই সমস্ত উপাদান গুলি মিশিয়ে একটি স্প্রে বোতলে ভরে নিন । এবার যে সমস্ত জায়গা দিয়ে বাড়িতে আরশোলা বা কীটপতঙ্গ প্রবেশ করে থাকে বা যাতায়াত করে সেখানে কিছুক্ষণ সময় অন্তর এই মিশ্রণ স্প্রে করে দিন। ফলাফল আপনারা হাতেনাতেই দেখতে পারবেন। মর্টিনের গন্ধের কারণে কিন্তু আর আরশোলা আপনার বাড়িতে কোনমতেই প্রবেশ করতে পারবে না।

২)মর্টিনের যে পেস্টটি বাকি ছিল এবার সেটাকে নিয়ে নিতে হবে একটি পাত্রে। এবার এই মিশ্রণের মধ্যে তিন থেকে চার চামচ আটা এবং এক চামচ বোরিক অ্যাসিড মিশিয়ে দিতে হবে। তারপর হাত দিয়ে ভালো করে সম্পূর্ণ উপকরণ গুলিকে আপনাদের মিশিয়ে নিতে হবে। এবার এগুলি দিয়ে একটি ছোট গোল বলের মতন তৈরি করে ফেলুন। যে সমস্ত জায়গা দিয়ে আপনার বাড়িতে আরশোলা বা ইঁদুর প্রবেশ করে সেই জায়গাতে আপনারা খুব সহজেই এই বল গুলি কে রেখে দিতে পারেন। এর গন্ধের কারণে এবং বিষাক্ত প্রভাবে ভুল করেও আপনার বাড়িতে আরশোলা প্রবেশ করবে না।।

Back to top button