দীঘা পুরী নয়! বিশুদ্ধ প্রকৃতির ডাকে স্বল্প খরচে ঘুরে আসুন এই ১০টি বিশেষ জায়গা!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- সাধারণ মধ্যবিত্ত আম বাঙালির ভ্রমণের পরিকল্পনা বলতেই হয় দীঘা নয়তো পুরী। এই সবকিছুর মাঝেই আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে আসতে চলেছি এমন কিছু জায়গার খোঁজ যা চেনা ছন্দের বাইরে বেরিয়ে আপনাকে কিন্তু পরিবেশকে ভালোবাসতে সাহায্য করবে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা এমন দশটি জায়গা সম্পর্কে আপনাদের সাথে আলোচনা করে নিতে চলেছি যেগুলির সাথে আপনারা একবার পরিচিত হলেই কিন্তু জায়গাগুলির প্রেমে পড়তে বাধ্য হবেন। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

১) আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনের শুরুতেই আমরা যে জায়গাটির কথা আলোচনা করতে চলেছি সেটা হল ওড়িশাতে নির্জন সমুদ্রের কাছে ঝাউ জঙ্গলের মাঝে বাগদা ব্যাক প্যাকার্স ক্যাম্প। অসাধারণ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে মোড়া এই জায়গাটি নিঃসন্দেহে আপনাকে আকৃষ্ট করতে বাধ্য করবে।

২) দ্বিতীয় যে জায়গাটির কথা বলব তা মন্দারমনি থেকে মাত্র সাত কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। এখানে লাল কাঁকড়াদের মাঝে হোটেল ছাড়া রয়েছে অন্য রকমের থাকার ব্যবস্থা। এখানে এসে আপনারা কেবিনের সময় কাটাতে পারেন পাশাপাশি সন্ধ্যেবেলায় বারবিকিউ চিকেন আর ক্যাম্প ফায়ারের আড্ডা তো রয়েছেই।

৩) এছাড়াও আপনারা চলে যেতে পারেন অজয় নদের ধারে জয়দেব ধাম আর গড় জঙ্গল। হাতের সময় থাকলে কিন্তু একবার আখড়ায় ঘুরে আসতে ভুলবেন না। এখানেই কাছে রয়েছে সোনাঝুরির হাট। এই জায়গাটির নাম মুন্দিরা ব্যাকপ্যাকার্স ক্যাম্প।

৪) চতুর্থ নম্বরে আমরা বলবো হাতিপাথর ব্যাকপ্যাকার্স ক্যাম্পের কথা। নদীর ধারে জঙ্গলের মাঝে অফবিট লোকেশন যাদের পছন্দ তারা কিন্তু খুব সহজেই এখানে ঘুরে আসতে পারেন। এখানে খুব সামনেই রয়েছে একটি পার্ক এবং হাজার বছরের পুরনো একটি মন্দির। ভ্রমণপিপাসুদের কিন্তু এই জায়গাটা খুব একটা খারাপ লাগবে না।

৫) লেকের পাশে ক্যাম্পিং করা, ম্যাজিক আইল্যান্ড ঘুরে দেখা এবং বিকেলে অসাধারণ বোট রাইট করতে চাইলে আপনাকে কিন্তু আর দেরি না করে চলে যেতে হবে দোলাডাঙ্গা ব্যাকপ্যাকার্স ক্যাম্পে। এখানকার অসাধারণ পরিবেশ আপনাকে কিন্তু খুব সহজেই মুগ্ধ করবে।

৬) এবারে আমরা যে জায়গাটির কথা বলব সেটি কিন্তু সম্প্রতি রীতিমতো ট্রেন্ডিংয়ে রয়েছে। মোটামুটি কাছাকাছি ভ্রমণের জন্য মৌসুমী আইল্যান্ডের কথা আমরা এখানে বলতেই পারি। এখানে আপনারা টেন্ট থেকে শুরু করে কটেজ সমস্ত কিছুই কিন্তু অপশন হিসেবে পেয়ে যাবেন।

৭) ঝরনার পাশে জঙ্গলের মধ্যে যদি একটি লোকেশনের আপনারা খোঁজ করতে চলেছেন তাহলে এই জায়গাটি কিন্তু আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এক থেকে দুই দিনের ভ্রমণে আপনারা এরকম ধরনের প্রাকৃতিক পরিবেশ উপভোগ করার জন্য চলে যেতে পারেন ঝিংকপাহাড়ি ব্যাকপ্যাকার্স ক্যাম্প। যদি আপনার ভাগ্য ভাল থাকে সেক্ষেত্রে কিন্তু এখানে আপনারা হাতির দেখাও পেতে পারেন।

৮) ইছামতি নদীর ধারে পারমাদন জঙ্গলে আপনারা কিন্তু ঘুরে আসতে পারেন বেশ কয়েকদিন। এখানকার গা ছমছমে ভুতুড়ে পরিবেশ এবং নীলকুঠির অজানা ইতিহাস আপনাদেরকে মুগ্ধ করবে। জায়গাটির নাম মঙ্গলগঞ্জ ব্যাকপ্যাকার্স ক্যাম্প। এখানে টেন্ট থেকে শুরু করে কটেজ সমস্ত কিছুর ব্যবস্থা রয়েছে। যদি কটেজে থাকতে চান সেক্ষেত্রে জন প্রতি ১৩০০ টাকা এবং যদি টেন্টে থাকতে চান সেক্ষেত্রে জনপ্রতি ১২০০ টাকা মতন খরচ পড়বে।

৯) এবার আমরা যে জায়গাটির সন্ধান আপনাদের দেবো সেখানে কিন্তু আপনারা খাদের ধারে বসে তারা দেখতে দেখতে দূরে দার্জিলিং শহরের আলোরররেখা দেখতে পাবেন। অ্যাডভেঞ্চারের জন্য এখানে রয়েছে মাজুয়া ট্রেক বা সান্ত্রে ফলস ট্রেক। এই জায়গাটির নাম হচ্ছে গুরদুম ব্যাকপ্যাকার্স ক্যাম্প।

১০) আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা সবথেকে শেষে যে ক্যাম্পটির কথা বলব সেটি সবুজে ঘেরা পাহাড়ের মাঝে তিস্তা নদীর ধারে অবস্থিত। এখানে রয়েছে একটি অসাধারণ সুন্দর ঝুলন্ত ব্রিজ। এখানে আসলে অবশ্যই আপনারা তিনকাতেরি হোমস্টে তে ভিজিট করতে কিন্তু ভুলবেন না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি আপনাদের কেমন লাগলো তা কমেন্ট বক্সে জানানোর অনুরোধ রইলো। এই ধরনের ভ্রমণ সংক্রান্ত আরো নিত্যনতুন আপডেট পেতে হলে পরবর্তী লেখাগুলির উপর চোখ রাখতে পারেন।

Back to top button