‘চলতি বছরের শেষেই আসবে করোনার টিকা, অবশেষে আশার কথা শোনাল WHO প্রেসিডেন্ট!

‘চলতি বছরের শেষেই আসবে করোনার টিকা, অবশেষে আশার কথা শোনাল WHO প্রেসিডেন্ট!

নিজস্ব সংবাদদাতা:2020সাল আতঙ্কের সাল।বিশ্বব্যাপী মহামারীর রমরমা হয়েছে এই সালেই। তবে খুশির খবর, এই বছরেই আসছে করোনার টিকা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাএর পক্ষ থেকে সাধারন মানুষএর জন্যে আশার খবর দেওয়া হলো সম্প্রতি।হু–এর ডিরেক্টর টেড্রোস অ্যাডানম জানান, “চলতি বছরের শেষেই কোভিড ভ্যাকসিন তৈরি হয়ে যেতে পারে। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন অর্থাৎ হু–এর তত্ত্বাবধানে এই মুহূর্তে ন’টি ভ্যাকসিনের ট্রায়াল চলছে।

২০২১ সালের মধ্যে ভ্যাকসিনের প্রায় ২০০ কোটি ডোজ তৈরির লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে হু।”আবার ভারতের টিকা প্রস্তুতির দৌড়ে ভালো খবর শুনিয়েছেন ভারতের স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণও। তিনি জানিয়েছেন, “আগামী বছরের শুরুর দিক থেকেই টিকা বিলি শুরু হতে পারে। সে ভাবেই রাজ্যগুলির সঙ্গে আলোচনা করে নির্দেশিকা তৈরি হচ্ছে।” কেন্দ্র সরকারের পরিকল্পনায়, ডিজিট্যাল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে টিক সংরক্ষণ ও বিলি করার কর্মসূচি তৈরি করা হবে।

কিন্তু সর্বাগ্রে দরকার টিকার সংরক্ষণ। দেশের কিংবা বিদেশ, যেখানেই হোক, টিকার ভায়াল গুলোকে সবার আগে কোল্ড স্টোরেজে রাখার ব্যবস্থা করতে হবে।এয়ার ট্রান্সপোর্ট করার পর টিকার সংরক্ষণ ঠিকমতো না হলে ডোজ নষ্ট হবার সম্ভাবনা আছে। ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি টিকার ট্রায়াল চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

ভারত বায়োটেকের তৈরি টিকার তৃতীয় পর্বের ট্রায়াল চালু হয়ে গেছে । অন্যদিকে জাইডাস ক্যাডিলার টিকার ট্রায়াল চলছে পুরোদমে। এইমস–এর ডিরেক্টর রণদীপ গুলেরিয়া বলেছেন, “ভারতে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল যেভাবে এগোচ্ছে তাতে একুশ সালের গোড়ার দিকেই কোভিড ভ্যাকসিন চলে আসার কথা।”


Leave a Reply

Your email address will not be published.