নিউজ

২১ পল্লীতে দুর্গা আঁকলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী, মুখে কিন্তু ওটা মাস্ক!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- করোনার জন্য এবারের দুর্গা পুজো অন্যান্য বছরের তুলনায় অনেকটাই আলাদা । শহরজুড়ে আলোকসজ্জা নেই, নেই প্যান্ডেল । বাজারে মধ্যে নেই মা কাকিমা দের ভিড় নেই। কারণ সব আনন্দ গ্রাস করে নিয়েছে এই করোনা। কিন্তু বাঙালির শ্রেষ্ঠ পুজো বলে কথা থামিয়ে রাখলে কই আর চলে? তাই সমস্ত রকম সতর্কবার্তা মাথায় রেখেই অল্প হলেও আয়োজন করা হচ্ছে পুজো । কিছুটা হলেও মেতে উঠতে চলেছে আগামী চার দিন রাজ্যবাসী।

ইতিমধ্যে এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পুজো কমিটি ক্লাবগুলোকে ৫০ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন । কারণ এই মুহূর্তে সাধারণ মানুষের পক্ষে বেশি মাত্রায় চাঁদা দেওয়া সম্ভব নয় । চাঁদার কারণে যাতে পুজো আ-ট-কে না যায় তাই এই সিদ্ধান্ত মুখ্যমন্ত্রীর । এর পাশাপাশি বিদ্যুতের ৫০% বিল। মুকুব ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী । কোনমতে এ বারের পুজোটা বাঁচিয়ে রাখার পক্ষে তিনি। কারণ এই পূজাকে ঘিরে অনেক মানুষের রোজগার জড়িয়ে থাকে। অনেক মানুষ চেয়ে থাকেন শুধুমাত্র পুজোর চারটে দিনের জন্য ।কাজেই সবার কথা ভেবে অল্প করে হলেও পুজোর আয়োজন এর অনুমতি দিয়েছে রাজ্য সরকার ।

এর পাশাপাশি পুজো কমিটি গুলিকে নির্দেশ দিয়েছে যাতে সমস্ত রকম সতর্কবার্তা অক্ষরে অক্ষরে পালন করা হয়। মাস্ক, স্যানিটাইজার এগুলো যেন বাধ্যতামূলকভাবে থাকে । মন্ডপে যেন ভিড় না হয় । তবে এবারে আর পুজো উদ্বোধন এ সশরীরে উপস্থিত থাকবে না মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নবান্ন ভার্চুয়াল মাধ্যমে কলকাতা এবং কলকাতার বাইরে পুজোর উদ্বোধন করবেন তিনি ।

কিন্তু বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে দেখা গেল সশরীরে ২১ পল্লীতে । শুধুমাত্র যে সেখানে তিনি উদ্বোধন করেছেন তেমন নয় তার পাশাপাশি এঁকেছেন একটি মা দুর্গার মূর্তি। ও যেখানে দেখা যাচ্ছে মা দূর্গা মাস্ক পরা অবস্থায়। যদিও সেই আঁকা কে কেন্দ্র করে বেশ কিছু হাস্যকর মন্তব্য এসেছে। তবুও তিনি তার মতন চেষ্টা করেছেন একটি সুন্দর মায়ের মূর্তি আঁকার । এর পাশাপাশি তিনি মানুষজনদের কে পরোক্ষভাবে একটি বার্তা দিতে চেয়েছেন যে কোন কারনে নিরাশ হইও না । এবছর না হলেও পরের বছর ভালো করে ধুমধাম করে পালন করা হবে বাঙালির শ্রেষ্ঠ পুজো ।

\

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button