“আগামী বছরের গোড়ায় এক নয়, একাধিক করোনা ভ্যাকসিন আমরা সারা দেশের মানুষের কাছে পৌঁছে দেবো”- স্বাস্থ্যমন্ত্রী

“আগামী বছরের গোড়ায় এক নয়, একাধিক করোনা ভ্যাকসিন আমরা সারা দেশের মানুষের কাছে পৌঁছে দেবো”- স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদদাতা: কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন জানিয়েছেন, আগামী বছরের শুরুর দিকে ভারতের একাধিক করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিন প্রস্তুত হয়ে যাবে। তিনি মন্ত্রীমণ্ডলের বৈঠকে এই বিবৃতি দিয়েছেন। তিনি জানান, “আমরা আশা করছি যে আগামী বছরের শুরুর দিকে আমাদের একাধিক উৎস থেকে দেশে ভ্যাকসিন নেওয়া হবে। আমাদের বিশেষজ্ঞ দলগুলি কীভাবে সারা দেশে এই ভ্যাকসিন বিতরণ করতে হবে সে বিষয়ে পরিকল্পনা করছে”।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের প্রকাশিত তথ্যে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় 55,৪৩২ টি নতুন কেস এবং 7০6 জন মারা যাওয়ার পরে, ভারতের কোভিড -১৯ এর সংখ্যা আজ 7175881 এ পৌঁছেছে।বর্তমানে 8,38,729 সক্রিয় মামলা রয়েছে, এবং 62,27,296 জন সুস্থ হয়েছেন।

হর্ষবর্ধন আসন্ন উৎসবের মরসুমকে মাথায় রেখে স-ত-র্ক-তা অনুসরণ করতে বলেন। সরকার কর্তৃক জারি করা নির্দেশিকা অনুসরণ করার জন্য, দেশের জনগণকে বড় বড় জমায়েত থেকে দূরে থাকার জন্য স-ত-র্ক করেছেন। তিনি আরো বলেছিলেন যে, শীতকালে করোনভাইরাস সংক্র-মণ বাড়ার সম্ভাবনা বেশি, কারণ এটি একটি শ্বাসতন্ত্রের ভাইরাস। শ্বাসতন্ত্রের ভাইরাসের সং-ক্রমণ ঠান্ডা আবহাওয়ার সময় বৃদ্ধি পেতে পারে।

ভারতে বর্তমানে পরীক্ষিত COVID-19 ভ্যাকসিনগুলি 2 ডোজ এবং 3 ডোজ ভ্যাকসিন। সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া এবং ভারত বায়োটেক কর্তৃক ভ্যাকসিনের জন্য 2 টি ডোজ প্রয়োজন হয়। অন্যদিকে ক্যাডিলা ভ্যাকসিনের জন্য 3 টি ডোজ প্রয়োজন।

বর্তমানে, দেশীয়ভাবে-বিকশিত দুটি ভ্যাকসিন প্রার্থী,আইসিএমআরের সহযোগিতায় ভারত বায়োটেকের ভ্যাকসিন এবং অন্যটি জাইডাস ক্যাডিলা লিমিটেড,ক্লিনিকাল পরীক্ষার দ্বিতীয় ধাপে রয়েছে। অক্সফোর্ড এর কোভিড -১৯ ভ্যাকসিনএর জন্যে, ভারতের পুনে ভিত্তিক সিরাম ইনস্টিটিউট আস্ট্রাজেনেকার সাথে অংশীদার হয়ে ভারতে দ্বিতীয় ও তিনটি ধাপের ক্লিনিকাল ট্রায়াল পরিচালনা করছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published.