অর্ধেক খাটনি কমাতে ৪টি সহজ ও দুর্দান্ত কিচেন টিপস, যা জানলে মনে হবে আগে জানলে ভালো হতো!

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাড়ির গৃহিনীদের কিন্তু প্রতিনিয়ত বিভিন্ন জিনিসের যত্ন নিতে হয়। রান্নাঘর বা বাথরুম বা বেডরুম সবকিছুই কিন্তু একেবারে সুন্দর আর ঝকঝকে করে রাখতে পছন্দ করেন অনেকে। তবে দৈনন্দিন যে কোন কাজ ভালোভাবে করার জন্য কিন্তু কিছু সঠিক উপায় রয়েছে। অনেকেই এই সমস্ত ব্যাপারে জানেন না। বিশেষ করে যারা নতুন গৃহিণী রয়েছেন তাদের কিন্তু অবশ্যই যে কোন কাজ করার সময় সঠিক পদ্ধতি সম্পর্কে জানা বিশেষভাবে প্রয়োজন।

যেমন ধরুন কি করে রান্না ঘরের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র গুছিয়ে রাখা যেতে পারে বা চাল, ডাল,মসলা ইত্যাদি সংরক্ষণের পদ্ধতি। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই গৃহিণীদের উদ্দেশ্যে নিয়ে চলে এসেছি এমন কিছু কিচেন টিপস যা খুব সহজেই তাদের সময় বাঁচাবে এবং যেকোনো কাজ সহজ করে তুলবে।

বিশেষ কয়েকটি কিচেন টিপস:

১) থার্মোস্টিলের বোতল পরিষ্কার:

দীর্ঘ সময় ধরে থার্মোস্টিলের বোতল ব্যবহার করতে থাকলে কিন্তু এর মধ্যে থেকে গন্ধ আসতে শুরু করে এবং এটা নোংরা হয়ে যায়। সহজ উপায়ে এটি পরিষ্কার করার জন্য আপনারা ঘরে রাখা কোলগেট ব্যবহার করতে পারেন। বোতলে একটু কোলগেট রেখে তার উপরে জল ঢেলে ভালো করে ধুয়ে নিলেই কিন্তু এটি সম্পূর্ণ দুর্গন্ধ মুক্ত আর পরিষ্কার হয়ে যাবে।

২) মাছির হাত থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার উপায়:

বর্ষাকালে বা বাড়িতে খুব বেশি মিষ্টি সামগ্রী আসলে কিন্তু মাছি আর মশাদের উপদ্রব বেশি পরিমাণে দেখা যায়।। বাড়িতে কোন অতিথিদের সামনে আপনারা মিষ্টি পরিবেশন করলেও কিন্তু এই সমস্যা আরো বেশি হতে পারে। এর থেকে রেহাই পেতে আপনারা বাড়িতে কোন অতিথি আসলে যখন তার সামনে মিষ্টি বা ফল পরিবেশন করবেন তখন সেই জায়গাতে একটি অর্ধেক কাটা লেবুর মধ্যে লবঙ্গ রেখে দিতে পারেন।। তাহলে দেখবেন আর মশা বা মাছি সেখানে আসবে না।

৩) ময়দা বা বেসণ জাতীয় খাদ্য সামগ্রী সংরক্ষণ:

ময়দা, সুজি এবং বেসন জাতীয় খাদ্যদ্রব্য গ্রীষ্ম বা বর্ষায় প্রায় সময় নষ্ট হয়ে যায় অথবা এর মধ্যে এক ধরনের ছোট সাদা পোকার উপদ্রব দেখা দেয়। এই সমস্যা থেকে রেহাই পেতে আপনারা নিম পাতা এবং তেজপাতা ব্যবহার করতে পারেন। ময়দা বা বেসনের পাত্রে আপনারা কয়েকটি তেজপাতা বা নিমপাতা রেখে দেবেন এতে কখনোই পোকামাকড়ের উপদ্রব হবে না।

পাতায় অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুন রয়েছে যা পোকামাকড়ের হাত থেকে এই সমস্ত উপকরণ গুলিকে রক্ষা করবে। পাশাপাশি বলব আপনারা অবশ্যই কিন্তু এই সমস্ত উপকরণ গুলিকে একটি বায়ুরোধী পাত্র বা কন্টেইনারে সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন।

৪) হ্যান্ডওয়াশের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ:

করোনা আবহে কিন্তু হ্যান্ডওয়াশ এর ব্যবহার অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। বিশেষ করে বাচ্চারা যখন হ্যান্ডওয়াশের বোতল ব্যবহার করে তখন লক্ষ্য করবেন অতিরিক্ত পরিমাণে তারা এটা বের করে দিয়ে থাকে। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে আপনারা একটি রবার নিয়ে বোতলের ক্যাপ এর উপর রাখতে পারেন। তাহলে কিন্তু খুব অল্প পরিমাণে হ্যান্ডওয়াশ বোতলের উপরের অংশ টিপলে বেরিয়ে আসবে।

এতে দীর্ঘ সময় হ্যান্ডওয়াশ আপনারা ব্যবহার করতে পারবেন আর এটা একেবারেই নষ্ট হবে না। আজকের এই বিশেষ কিচেন টিপসগুলি আপনাদের কেমন লাগলো তা জানাতে অবশ্যই ভুলবেন না। এই ধরনের আরো কার্যকরী টিপস সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের অন্যান্য প্রতিবেদন গুলির উপর নজর রাখতে থাকুন।

Back to top button